মেইন ম্যেনু

যেখানে ক্ষুধার জ্বালায় মেয়েদের বিক্রি করছেন বাবারা!

কয়েক মাস ধরে বন্ধ চা বাগান। কাজ নেই, স্বাভাবিকভাবেই নেই আয়ের কোনো সংস্থান। অগত্যা ক্ষুধা মেটাতে নিজের মেয়েদের বিক্রি করে বাঁচার পথ খুঁজছেন চা শ্রমিকরা!

ভারতের সিকিম রাজ্যে বিক্রি হয়ে যাওয়া এমনই দুই কিশোরীকে গতকাল শনিবার উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশের কাছে উদ্ধার হওয়া কিশোরীদের অভিযোগ, এমনই আরো অনেক কিশোরীকে বিক্রি করে দিয়েছেন তাদের চা শ্রমিক বাবারা।

সিকিমের অনেক চা বাগান ঘুরে ভারতের সংবাদমাধ্যম জিনিউজের সংবাদদাতা দেখতে পেয়েছেন একই চিত্র। বেশ কয়েক মাস ধরেই কাজ নেই চা শ্রমিকদের। ঘরে অভুক্ত বহু মানুষ।

বংশনুক্রমিকভাবে চা বাগানে কাজ করা এসব চা শ্রমিক অন্য কোনো কাজও জানে না যা করে চালাবে পেট। আর এই অবস্থাতেই বাগান থেকে বিক্রি হচ্ছে একের পর এক কিশোরী।

জিনিউজের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে ১০ মাস বন্ধ সিকিমের মালবাজারের মেটালি ব্লকের ডানকানের কিলকোট চা বাগানের শ্রমিকদের কথা। বন্ধ হওয়ার দুই মাস আগে থেকে কাজ হারিয়েছে বাগানের ১৪০০ শ্রমিক। এদের মধ্যে কাজের খোঁজে শহরে পাড়ি দিয়েছে অনেকে।

যারা কোথাও যেতে পারেনি তারা আধপেটা খেয়ে কোনো রকমে মানবেতর জীবনযাপন করছে। খুঁজছে নিজে বেঁচে থাকার আর পরিবারকে বাঁচিয়ে রাখার অন্য উপায়ও। সেই উপায় খুঁজতে গিয়েই ওই দুই মেয়েকে মাত্র আট হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন তাদের বাবারা।






মন্তব্য চালু নেই