মেইন ম্যেনু

যেখানে ধুমপান করলে থাপ্পড় দেয় ভূত!

একটি বহুতল পুরানো ভবনে যদি কেউ ধুমপান করে তাহলে সঙ্গে সঙ্গে থাপ্পড় দেয় ভূত। একই সঙ্গে যদি কোন গার্ড ডিউটির সময় ঘুমায় তখন ভূত থাপ্পড় দিয়ে তাকে জাগিয়ে দেয়। অদ্ভূত মনে হলেও ঘটনাটি সত্য।

ভারতের রাজস্থানের পুরানো দুর্গ এবং পুরানো বাড়ির এই ভূতের গল্প বিশ্বজুড়ে পরিচিত। এখানে ডিউটির সময় যদি কেউ শুয়ে পড়ে বা ঘুমায় তাহলে ভূত থাপ্পড় মেরে জাগিয়ে দেয়। রাজস্থানের কোটাতে ব্রীজ রাজ ভবন প্যালেস আজও তার অনন্য ইতিহাসের জন্য স্মরণীয় হয়ে আছে।

১৮০ বছর পুরানো এই ঐতিহাসিক ভবনকে ১৯৮০ সালে হোটেলে রুপান্তরিত করা হয়। কিন্তু এখানে আসা লোকদের মধ্যে এক ধরণের অদ্ভূত অনুভব হয়। যেমন বলা হয়ে থাকে, এই হোটেলে মেজর বার্টন নামের এক ভূত আছে। যে ব্রিটিশ শাসনামলে কোটাতে দ্বায়িত্বরত ছিলেন এবং ১৮৫৭ সলের নীল বিদ্রোহের সময় তাকে ভারতীয় সৈন্যরা তাকে হত্যা করে।

এ সময় তার দুই মেয়েকেও ওই ভবনে হত্যা করা হয়। কোটার সাবেক মহারানী ১৯৮০ সালে মেজরকে যে স্থানে হত্যা করা হয়েছিল সেখানে মেজরের আত্মাকে একই অবস্থায় দেখেছিলেন।

এখানকার লোকরা জানান, এই ভূত কাউকে কোন ক্ষতি করে না। কিন্তু যদি এই ভবনের কোন গার্ড ডিউটির সময় ঘুমায় তাহলে তাকে থাপ্পড় দিয়ে জাগিয়ে দেয়। একই সঙ্গে এই ভবনে যদি কেউ ধুমপান করে তাহলে তাকে থাপ্পড় দেয়। এ কারণে এখানে কর্মরত লোকরা ডিউটির সময় ঘুমাতে এবং ধুমপান করতে ভয় পায়।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই