মেইন ম্যেনু

যেভাবে একাই ৩শতাধিক পুরুষকে এইচআইভিতে আক্রান্ত করেছেন এক নারী

একাই ৩২৪ জন পুরুষকে এইচআইভিতে আক্রান্ত করেছেন বলে দাবি করলেন কেনিয়ার এক নারী শিক্ষার্থী। দেশটির কাবারাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐ ছাত্রী জানান, একটি অনুষ্ঠানে নিজে এইচআইভি দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার পর প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে তিনি এতগুলো মানুষকে এইচআইভি আক্রান্ত করেছে। ২ হাজার লোককে আক্রান্ত করা তার পরিকল্পনা ছিলো বলে জানায় ১৯ বছর বয়সী এই নারী।

আর এ বিষয়টি তিনি কেনিয়ান ডেইলি পোস্টের একটি আর্টিকেলের মাধ্যমে সবার মাঝে প্রকাশ করেন। তবে তিনি নিজের পরিচয় গোপন রাখার শর্তে নিবন্ধটি লিখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু পত্রিকাটি সবাইকে সতর্ক করার জন্য ছবিসহ তার লেখাটি প্রকাশ করে।

তিনি লিখেন, ‘আমি আমার কলেজ পার্টিতে মজা করছিলাম। এক পর্যায়ে আমি অনেক মাতাল হয়ে পড়ি এবং জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। জ্ঞান ফেরার পর জানতে পারি জাভান নামের এক ছেলের সঙ্গে আমার দৈহিক মিলন ঘটে। তবে সে কনডম ব্যবহার করেছে বলে জানিয়েছিলো তাই আমি ততটা দুশ্চিন্তায় ছিলাম না ‘

কিন্তু কিছুদিন পরে আমি এইচআইভিতে আক্রান্ত হন ওই শিক্ষার্থী। তিনি জানান, ‘তখন আমি আবারো তাকে জিজ্ঞাসা করি কিন্তু সে স্বীকার করেনা। আমি খুবই হতাশ হয়ে পড়ি এবং মাদকাসক্ত হয়ে যাই। একটা সময় আত্মহত্যারও চেষ্টা করি আমি। এরপর আমি সিদ্ধান্ত নেই যে আমি এর প্রতিশোধ নেব। যতজন সম্ভব সবাইকে আমি এইচআইভিতে আক্রান্ত করবো। আমি বেশ আকর্ষণীয় ছিলাম তাই আমার জন্য এটা কোনো ব্যাপারই ছিলোনা।’

এভাবে ৩শ ২৪জন পুরুষকে এইচআইভিতে আক্রান্ত করেন বলে জানান তিনি। এর ১৫৬ জনই ছিলো তার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। বাকিরা কেউ বিবাহিত, কেউ শিক্ষক, আইনজীবী, তারকা কিংবা রাজনীতিবিদ।

প্রতিদিন কারো না কারো সঙ্গে দৈহিক মিলনে আবদ্ধ হন বলে জানান এই নারী। তিনি বলেন তার এই অভিযান চলতেই থাকবে। তবে এসব জানাজানির পর তা কি আর সম্ভব?






মন্তব্য চালু নেই