মেইন ম্যেনু

যেসব কারণে বাঙালি মেয়েরাই সবচেয়ে ভাল প্রেমিকা হয়!

বাঙালি মেয়ে কেমন হওয়া উচিত? প্রেমিকা যেমন হওয়া উচিত৷ কেন? আহা কারণ কী আর একটা আছে? দুষ্টু চোখের অমন মিষ্টি হাসি আর কোথায় আছে? যার কালো হরিণ চোখ দেখেছিলেন কবিগুরু৷ যার প্রতিটি ব্যর্থ প্রেমই নতুন অহঙ্কার দিয়েছে সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়কে৷ হুমায়ূন আহমেদ হয়েছেন হিমু! তারই এমনই কিছু গুণ বারবার মুগ্ধ করেছে সমস্ত যুগের প্রেমিককুলকে৷

শাড়িতে বঙ্গললনা : বঙ্গ নারীর অঙ্গে যদি একবার ওঠে শাড়ি, সেই দৃশ্য যে কোনও পুরুষের মন কাড়তে বাধ্য৷

কথা বলার ভঙ্গি : বাঙালি মেয়েদের সঙ্গে কথা বলে কখনও ক্লান্তি বোধ করবেন না৷ আর তা বেশ বুদ্ধিদীপ্ত আলোচনাই হবে৷

ভজন প্রিয় : ডায়েটের ধারের কাছে দিয়েও যান না অধিকাংশ বাঙালি তনয়া৷ মাছের মাথা থেকে মাংস কবজি ডুবিয়ে নির্দ্বিধায় খাবে আপনার পাশে বসে৷

রান্না-বান্না : সুন্দর করে যিনি চুল বাঁধেন, তিনি ভাল রাঁধতেও জানেন৷ হ্যাঁ, অধিকাংশ বাঙালি মেয়েরাই দারুণ রাঁধেন৷ আর প্রেম ও পেটের যোগসূত্র সনাতন৷

অল্পতেই খুশি :বাঙালি মেয়েদের খুশি করতে গেলে কোনও সোনার গয়না কিংবা হিরের দ্যুতির প্রয়োজন নেই৷ একটি মনের মতো বই দিয়ে দিন৷ তাতেই তারা আহ্লাদে আটখানা৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্রেমিকের আর্থিক পরিস্থিতিতে খুব একটা কিছু এসে যায় না বাঙালি মেয়েদের৷

স্বাধীনচেতা : বাঙালি মেয়ে ভীষণ স্বাধীনচেতা হন৷ তাই অন্যের উপর নির্ভরশীলতা তুলনামূলকভাবে কমই থাকে৷ আর হ্যাঁ, বাঙালি মেয়ের সঙ্গে প্রেম করলে আপনার সেরা সময় কাটবে!






মন্তব্য চালু নেই