মেইন ম্যেনু

যেসব কারণে বিয়ে করলে খরচ কমে যায়

বিয়ের নাম শুনলেই অনেকে ভয়ে সিঁটিয়ে যান। অনেক খরচ হবে যে! কিন্তু জেনে রাখুন, বিয়ের অনুষ্ঠানে অনেক খরচ হলেও বিয়ের পরে আপনার জীবনযাপনের খরচ অনেক দিক দিয়ে কমে যাবে! জানতে চান, কী করে?

১) ইনস্যুরেন্স রেট

কিছু কিছু ক্ষেত্রে ইনস্যুরেন্সের পলিসি নির্ভর করে ম্যারিটাল স্ট্যাটাসের ওপরে। অবিবাহিতদের চাইতে বিবাহিতদের প্রিমিয়াম কম দিতে হয় এসব সময়ে।

২) মাল্টিপল পলিসি

একই ইনস্যুরেন্স কোম্পানির পলিসিতে দম্পতিদের একাধিক ইনস্যুরেন্স থাকলে অনেক সময়ে তাদেরকে কিছুটা ডিসকাউন্ট দেওয়া হয়ে থাকে। সেদিক দিয়েও খরচ বাঁচাতে পারেন আপানি।

৩) কেনাকাটা

একজন মানুষের জন্য কেনাকাতা করা দরকার হয় কম করে। এতে খরচটাও বেশি পড়ে। বিবাহিত জীবনে বেশি করে খাবার এবং অন্যান্য দরকারি জিনিস কিনে রাখার একটা তাগিদ থাকে। বেশি করে কিনে রাখলে খরচ কম পড়ে আর দুজনে মিলে ব্যবহার করা হয় বলে এগুলো নষ্টও হয় না। ফলে দুদিক দিয়েই লাভ হয়।

৪) বিলের খরচ

পানির বিল, ইলেক্ট্রিসিটি বিল এবং গ্যাসের বিল একজনের জন্য যতো আসে, দুজনের জন্য তার থেকে খুব বেশি হয় না। কিন্তু দুজনে ভাগাভাগি করে বিল দিলে অনেকটাই সাশ্রয় হয়।

৫) আসবাব ব্যবহার

অবিবাহিত জীবন যাপনের সময়ে আপনাদের দুজনের আলাদা আলাদা যেসব আসবাব ছিলো, বিয়ের পর সেগুলো একত্রিত করলে দেখা যায় তেমন কোনো নতুন আসবাব কিনতে হয়না। ফলে অনেকটা খরচ কমে যায়।

৬) খরচ কমানো

প্রতিটি মানুষেরই কিছু বদঅভ্যাস থাকে। তারা কোনো একটি বিশেষ জিনিসের পেছনে টাকা খরচ করতে ভালোবাসেন। কেউ হয়তো দামী ব্র্যান্ডের লিপস্টিক কিনে ঘর ভরে রেখেছেন অথচ ব্যবহার করেন কদাচিৎ। কেউ বা নতুন নতুন মডেলের মোবাইল কিনে ফেলেন অযথাই। এই কাজটি করা থেকে আপনাকে বিরত রাখতে পারে আপনার জীবনসঙ্গী। এসব আজেবাজে খরচ কমে গেলে অবাক হয়ে দেখবেন প্রতি মাসে কতো টাকা বেঁচে যাচ্ছে।

৭) ভবিষ্যতের পরিকল্পনা

একা একা ভবিষ্যতের পরিকল্পনা করলে পুরো খরচটাই নিজে বহন করতে হবে, এই চিন্তা থাকে মাথায়। কিন্তু বিবাহিত অবস্থায় ভবিষ্যতের পরিকল্পনা করলে দুজনে মিলে খরচ বহন করা হয়। ফলে খরচটা কমে আসে।






মন্তব্য চালু নেই