মেইন ম্যেনু

যেসব বিতর্কের জন্য ভাইয়ের হাতে খুন হলেন কান্দিল

ভাইয়ের হাতে খুন হয়েছেন পাকিস্তানের বিতর্কিত মডেল কান্দিল বেলুচ। পুলিশের দাবি, অনার কিলিংয়ের শিকার হয়েছেন কান্দিল।

কান্দিল বেলুচ সব সময় বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের শিরোনাম হতেন। কখনও পাকিস্তান জিতলে নগ্ন হয়ে নাচের প্রমিস করেছেন। কখনও বিরাট কোহলির জন্য স্নান করতে করতে ‘লাভ’ মেসেজ দিয়েছেন। আবার কখনও বা ছোট পোশাক পরে নাচের জন্য তার ভিডিও ব্লক করে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া।

শনিবার পাকিস্তানের মুজফ্‌ফরবাদের গ্রিন টাউন এলাকায় নিজ বাড়িতে ভাইয়ের বন্দুকের গুলিতে নিহত হন বেলুচ।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক বালুচের পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন, কান্দিল গোঁড়া মুসলিম পরিবারের সদস্য। তার কাজকর্মে পরিবারের কেউই খুশি ছিলেন না। ফলে তাকে অনেকবার মডেলিং ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল। সামাজিক ভাবেও কান্দিলের পরিবারের ওপর চাপ আসছিল। কিন্তু পরিবারের কোনও কথা শোনেননি কান্দিল।

কান্দিল বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে-এসব অশ্লীল মন্তব্য এবং কাজের জন্যই খুন হতে হয়েছে তাকে।

এদিকে খুন করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে তার ভাই মহম্মদ ওয়াসিমকে। শনিবারই গ্রেফতার করা হয় ওয়াসিমকে। জেরায় পুলিশকে সে জানিয়েছেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তিকর ছবি এবং ভিডিও পোস্ট করায় তাকে খুন করেছে সে। ওয়াসিম আরও জানিয়েছেন, কান্দিলের এই ধরনের কাজে গোটা পরিবারের সম্মানহানি হচ্ছিল।

চলতি বছরের মার্চে ভারতে চলছিল টি২০ বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপে আফ্রিদির পাকিস্তান যদি ভারতকে হারাতে পারে তা হলে নগ্ন হয়ে নাচবেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন কান্দিল। সে সময় ইউটিউবে একটি ভিডিও পোস্ট করে কান্দিল বলেছিলেন, মেরি জান আফ্রিদি। আমি তোমার জন্য সব কিছু করব। শুধু তুমি এ বার ইন্ডিয়াকে হারিয়ে দাও। আমি তোমার জন্য স্ট্রিপ ডান্স করব।

কান্দিলের সেই বিস্ফোরক মন্তব্যের পরে ঝড় উঠেছিল ওয়েব দুনিয়ায়।

কিন্তু গত টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে ধোনিদের হাতে পরাজিত হয় পাকিস্তান। তখন ইউটিউবে একটি ভিডিও আপলোড করেন কান্দিল। যেখানে নগ্ন হয়ে নাচতে না পারার জন্য তাকে কাঁদতে দেখা যায়।

দ্বিতীয় ভিডিওতে কান্দিল বলেছিলেন, আফ্রিদি তোমাকে কখনও আমি ক্ষমা করব না। আমি তোমাকে ঘেন্না করি। পাকিস্তানে ফিরে এসো না। পাক জনতা তোমাদের ক্ষমা করবে না।

এরপর আফ্রিদিকে ছেড়ে বিরাট কোহলির প্রেমে পড়েন কান্দিল। টুইট করেন, বিরাট বেবি, আনুশকা শর্মা ছেড়ে আমার কাছে এসো। আমি তোমার প্রেমে পড়ে গিয়েছি।

স্নান করতে করতে বিরাটের জন্য একটি ভিডিও পোস্ট করেন। তিনি বলেন, বিরাট, আই লভ ইউ বেবি। আমি তোমাকে মিস করছি। এসো আমার সঙ্গে জয়েন কর। এই সব দেখেই বিরোধিতা করেছিলেন তার পরিবারের সদস্যরা।

কিছুদিন আগে কান্দিল বালুচের সঙ্গে সেলফি তোলার কারণে সাসপেন্ড করা হয়েছিল হাইপ্রোফাইল মুসলিম ধর্মগুরু মুফতি আবদুল কাভিকে। বাদ পড়েছেন পাকিস্তানের মুখ্য বিরোধী রাজনৈতিক দল তেহরিক-ই-ইনসাফ থেকেও।

তবে মুফতিকে ‘ইসলামের কলংক’ বলেছেন বালুচ। কান্দিলের কথায়-মুফতি কী করে নিজেকে ইসলামের অভিভাবক বলেন? উনি তো ইসলামের নামে কলংক। উনি অনুরাগীদের সামনে এক রকম, আলাদা থাকলে আর এক রকম। একটি টিভি শোয়ের প্যানেলে আমাদের আলাপ হয়েছিল। সেখানে আমার ফোন নম্বর আলাদা করে চেয়েছিলেন। আমার সঙ্গে একেবারেই সম্মানজনক ব্যবহার করেননি। ফলে এই লোকটাকে আমি এক্সপোজ করতেই চেয়েছিলাম।






মন্তব্য চালু নেই