মেইন ম্যেনু

যেসব বোনেদের শত্রুতা ইতিহাসে বিখ্যাত

পৃথিবীর রক্তের বন্ধনগুলোর ভেতরে ভাই-ভাই কিংবা ভাই-বোনের বন্ধনকে সবচাইতে দৃঢ় বলে মনে করা হয়। বাবা কিংবা মা কাছের মানুষ হলেও তাদের সাথে সব কথা মন খুলে বলা যায় না, তাদেরকে সবকিছু জানানো যায় না, যতটা না যায় ভাই বা বোনের কাছে। একে অন্যের জন্যে জীবন বাজি রেখেছে এমন দৃষ্টান্তের অভাব নেই পৃথিবীর ভাই-ভাই কিংবা ভাই-বোনেদের ভেতরে। কিন্তু এর ঠিক উল্টোটাও আছে। একে অন্যের জীবন নিয়ে ফেলতে পারে এমন ভাই কিংবা বোনও রয়েছে পৃথিবীতে। আর এখানে লেখা হলো তেমনই কিছু ভাই-বোন কিংবা বোনেদের কথা যাদের শত্রুতা পৃথিবীখ্যাত!‍

১. ক্লিউপেট্রা ও পিটোলেমি ১৩

বাবা পিটোলেমি ১২ মারা যাওযার পর ক্লিউপেট্রা আর তার ভাই পিটোলেমি ১৩ বিয়ে করে ফেলেন এবং রাজ্যের শাসনক্ষমতা ভাগাভাগি করে নেন। কিন্তু ধীরে ধীরে ক্লিউপেট্রার খ্যাতি বাড়তে থাকলে পিটোলেমি জুলিয়াস সীজারের সহায়তায় বোনকে মারার চক্রান্ত করেন। তবে পরে ক্লিউপেট্রা সীজারের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুললে ও তার বাচ্চার মা হয়ে গেলে পাশার দান উল্টে যায়। পরে ক্লিউপেট্রা ভাইকে মেরে ফেলে আর অন্য ভাই পিটোলেমি ১৪ এর সাথে শাসন করতে শুরু করে রাজ্য। কিন্তু কিছুদিন বাদেই নিজের ছেলের ক্ষমতা পাওয়ার পথকে পরিষ্কার করতে বোনের হাতে মারা যেতে হয় এই ভাইকেও। এছাড়াও একই কারণে ক্লিউপেট্রা মেরে ফেলে বোন আরসিনোকে। বংশহত শত্রুতা বলতে যা বোঝায় আর কি!

২. অ্যানড্রু বোনেরা

বর্তমানে অতোটা পরিচিত না হলেও ১৯২০ থেকে ১৯৬০ সালের মধ্যের সময়টাতে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল এই বোনেরা গানের মাধ্যমে। বিশেষ করে তাদের গান বুগি উগি আগল বয়, বিয়ার ব্যারেল পোলকা এবং বেই মিস বিস্ট ডু শোনের মাধ্যমে অনেক বেশি জনপ্রিয়তা পান তারা। তবে সবার সামনে ভালো আচরণ করলেও বাস্তবে প্যাটি, মেক্সেনে আর লেভার্নে অ্যান্ড্রু নামের তিন বোন কিন্তু মোটেই বন্ধু ছিল না। সদ্ভাব তো ছিলই না, বরং বাবা-মায়ের কারণে একসাথে থাকলেও শত্রুতাই ছিল তাদের ভেতরে। পরে বোন লেভার্নে ১৯৬৭ সালে মারা গেলে বাকি দুই বোনের সম্পর্ক আরো শীতল হয়ে যেতে থাকে। পরবর্তীতে একবার এই দুই বোন একসাথে গান করেন এবং ১৯৮২ সালে শেষবার দেখা হয় তাদের।

৩. বোলেইন বোনেরা

অষ্টম হেনরীকে ঘিরে বেশ কয়েকবার ঘুরপাক খায় এই দুই বোনের সম্পর্ক। এর আগে বাবার কাছ থেকে কম ভালোবাসা পাওয়ার কারণে মেরি যথেস্ট ক্ষুব্ধ ছিল অ্যানি বোলেইনের ওপর। পরবর্তীতে হেনরীর সাথে দুজনের সম্পর্ক ব্যাপারটাকে আরো বেশি ঘোলাটে করে দেয়। মনে করা হয় হেনরীর বাচ্চার মাও হয়েছিলেন মেরী। পরবর্তীতে ছেলে সন্তান জন্ম না দিতে পারলেও অ্যানির মেয়ে অ্যালিজাবেথকেই সিংহাসনে বসান হেনরী! এই সামান্য শত্রুতার জের ধরে পাল্টে যায় ইতিহাস!

তথ্যসূত্র- 10 Noteworthy Sibling Rivalries Through History






মন্তব্য চালু নেই