মেইন ম্যেনু

যৌনকর্মীর সঙ্গে সম্পর্কের কথা স্বীকার ব্রিটিশ মন্ত্রীর

যৌনকর্মীর সঙ্গে সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছেন যুক্তরাজ্যের সংস্কৃতিমন্ত্রী জন হুয়িটিঙ্গডেল। বুধবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মন্ত্রিসভায় যোগদানের আগে হুয়িটিঙ্গডেলের এ বিষয়টি চারটি সংবাদপত্র- দ্য পিপল, দ্য মেইল অন সানডে, দ্য সান এবং ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানতে পেরেছিল। তবে সংবাদমাধ্যমগুলো তার এ বিষয়টি প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

হুয়িটিঙ্গডেল এক বিবৃতিতে দাবি করেছেন, সম্পর্ক থাকার সময় ওই নারীর পেশা কী, তা তিনি জানতেন না। ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে ওই নারীর পেশা জানার পরপর তার সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করেন তিনি।

ওই নারী তার সঙ্গে সম্পর্ক থাকার ঘটনাটি সংবাদপত্রের কাছে বিক্রি করার চেষ্টা করছে- এমন বিষয় আবিষ্কার করার পর ওই নারীর সঙ্গে তিনি সম্পর্কচ্ছেদ করেন বলেও দাবি করেছেন হুয়িটিঙ্গডেল ।

বিবিসি নিউজনাইটকে হুয়িটিঙ্গডেল বলেছেন, ‘২০১৩ সালের অাগস্ট থেকে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আমার সঙ্গে একজনের সম্পর্ক ছিল, যার সঙ্গে ম্যাচডটকম ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রথম পরিচয় হয়েছিল। তিনি আমার বয়সি ছিলেন এবং আমার কাছাকাছি বসবাস করতেন। কখনোই তিনি তার প্রকৃত পেশা সম্পর্কে আমাকে কোনো ইঙ্গিত দেননি। আমি বিষয়টি আবিষ্কার তখনই করি, যখন আমাকে জানানো হয় কেউ আমার সম্পর্কে ট্যাবলয়েড সংবাদপত্রে একটি গল্প বিক্রি করার চেষ্টা করছে। বিষয়টি টের পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমি সম্পর্ক ত্যাগ করি।’

তিনি বলেন, ‘এটি পুরোনো গল্প, যা ওই সময়ে আমার জন্য কিছুটা বিব্রতকর ছিল। মন্ত্রিত্ব গ্রহণ করার বেশ আগে ঘটনাটি ঘটেছিল এবং আমার সংস্কৃতিমন্ত্রী হওয়ার সিদ্ধান্তের সঙ্গে ওই বিষয়টির কখনোই কোনো প্রভাব ছিল না।’

এদিকে, বিরোধী দল লেবার পার্টির পক্ষ থেকে হুয়িটিঙ্গডেলের পদত্যাগ দাবি করা হয়েছে। তবে ডাউনিংস্ট্রিটের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, হুয়িটিঙ্গডেল ব্যক্তিগত জীবনে নিঃসঙ্গ মানুষ। তার প্রতি প্রধানমন্ত্রীর পূর্ণ আস্থা রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই