মেইন ম্যেনু

যে আচরণগুলো দিনে দিনে আপনাকে করে দিচ্ছে একা

কথায় আছে, আয়নাও আমাদের সঠিক ছবি প্রতিবিম্বিত করে না। তাহলে নিজেক দেখব কোথায়? মনের আয়নায়? মনও কিন্তু আত্মপ্রেমী হয়। নিজের ভুল সে দেখেই না কখনো। খেয়াল করে দেখুন, এমন কত সময় হয় যে, আপনার ভুল ধরিয়ে দিচ্ছে অন্যেরা। আপনি একটা অন্যায় করে যাচ্ছেন, খেয়ালই করছেন না। আর কেউ বলার পর মনে হল, ‘তাই তো!’ আমাদের অনেক আচরণ এভাবেই আমাদের অজান্তেই অন্যদের কষ্ট দেয়, বিব্রত করে, বিরক্ত করে।

আসুন জেনে নিই নিজের ব্যক্তিত্বের ৫টি লক্ষণ যা অন্যদের কাছে আপনাকে তুলে ধরছে বিরক্তিকর একজন মানুষ হিসেবে। আর ধীরে ধীরে আপনি হয়ে যাচ্ছেন একদম একা।

আপনি আড্ডায় একঘেয়ে বোধ করেন
একজন ইন্টারেস্টিং মানুষ কখনোই আড্ডা দিতে অপছন্দ করেন না। তিনি নিজে তো মজার মজার বিষয়ে কথা বলেনই অন্যেরাও কথা বলতে চাইলে স্বাগত জানান। এতে করে সহজেই তিনি সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হয়ে ওঠেন, হন প্রিয়পাত্র।

আপনি যদি একঘেয়ে বোধ করেন, অন্যেরা তাতে বিরক্ত হয়। তারা হয়ত মুখে আপনাকে কিছু বলেন না, কিন্তু আপনার মানিয়ে নিতে না পারা তাদের বিব্রত করে। চেষ্টা করুন, আড্ডার মাঝে মজার কিছু খুঁজে নিতে। মিশে যান সবার সাথে, আপনিও কথা বলুন। কিছুদিন একটু অস্বস্তি লাগবে। কিন্তু একসময় আপনিও উপভোগ করতে শুরু করবেন।

আপনি অন্যকে হেয়প্রতিপন্ন করেন
আপনি অজ্ঞতা সহ্য করতে পারেন না। আপনার বন্ধু হয়ত একটা বিষয় জানে না। আপনি সেটা স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেন না। আপনার সহকর্মী কোন কাজে কম পারদর্শী। আপনি তাকে হেয় প্রতিপন্ন করা শুরু করলেন। এভাবে আপনি সবার মাঝে নিজেকে নেতিবাচক মানুষ হিসেবে তুলে ধরছেন।

খেয়াল করে দেখুন, আপনার বন্ধুদের মাঝে যিনি সবচেয়ে জনপ্রিয় তিনি কিন্তু সহজে কাউকে ছোট করেন না। তিনি যা জানেন অন্যকে জানান খুব সহজ ভঙ্গিমায়। তিনি শেখান। শিক্ষক নয়, বন্ধু হয়ে।

আপনি সরাসরি সমালোচনা করেন
মানুষ সরাসরি নিজের সমালোচনা নিতে পারে না। তা সে যতই সত্যি কথা হোক না কেন! আপনি যদি প্রতিনিয়ত ভুল ধরিয়ে দিতে থাকেন আপনার কাছের মানুষেরাই আপনার কাছ থেকে দূরে সরে যেতে থাকবে। সমালোচনা করুন আবার একই সাথে ভাল কাজের প্রশংসাও করুন।

আপনি সব কাজ একা করেন
নিজের কাজ নিজে করা খুবই পজেটিভ একটি ব্যপার। ছোটবেলা থেকেই বাবা-মায়েরা আমাদের এ ব্যাপারে উৎসাহ দেন। এই কাজটির একটি ভাল দিক হল, আপনি অবশ্যই সফল হবেন। কারণ যখন আপনি নিজেই কাজগুলো করেন তখন ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

কিন্তু একইসাথে এই কাজটি আপনাকে করে দেবে একা। আপনি এতই ব্যস্ত থাকবেন যে অন্যদের সাথে আপনার যোগাযোগ কমে আসবে। আপনার বন্ধুরাই হয়ত আপনাকে ঈর্ষা করবেন। সফল হতে হলে যেমন নিজ কাজে পূর্ণ মনোযোগের প্রয়োজন আছে তেমনি আবার একা একা বেশীদূর এগিয়ে যাওয়া যায় না। সকলকে নিয়ে এগিয়ে চলুন।

আপনি অন্যের মনোযোগ চান না
মানুষ কেন নিজের কাজের বাইরেও এত কাজ করে? কারণ সে যুক্ত থাকতে চায় সবার সাথে। মনোযোগ পেতে চায়, পেতে চায় যত্ন-ভালবাসা। আপনি যদি কখনো মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা না করেন তাহলে সহজেই নিজের একটি ক্ষুদ্র গন্ডিতে আবদ্ধ হয়ে পরবেন।

আপনার সফলতার প্রয়োজনেই আপনাকে মানুষের সাথে মিশতে হবে। তাদের কথা শুনতে হবে, নিজের কথা পৌঁছে দিতে হবে। অন্তর্মূখী নয়, ব্যক্তিত্বকে করুন বহির্মূখী, চমকপ্রদ।

নিজের আচরণের প্রতি একটু সচেতন হলেই আমরা হতে পারি এমন একজন মানুষ যাকে ভালবাসবে সবাই। ভাল ব্যবহার, অনুভূতির মূল্যায়ণ, পারস্পারিক শ্রদ্ধা সম্পর্কের মূল মন্ত্র। তার সাথে শুধু যোগ করুন নিজের ইতিবাচক প্রকাশ। হয়ে উঠুন বিরক্তিকর থেকে জনপ্রিয়।






মন্তব্য চালু নেই