মেইন ম্যেনু

যে কারণে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে সাহায্য করতে চায় ভারত

বড় দলগুলোর বিপক্ষে খেললে নিজেদের অবস্থান বুঝতে পারে জিম্বাবুয়ে-বাংলাদেশের মতো দলগুলো। কিন্তু আইসিসির দ্বি-স্তর টেস্ট নীতিতে তুলনামূলক ছোট দলগুলো এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। এটা বুঝতে পেরেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি অনুরাগ ঠাকুর। জানালেন, টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে নিচের সারিতে থাকা বাংলাদেশের মতো দলগুলোর পাশে থাকবে ভারত।

নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে অনুরাগ ঠাকুর বলেন, ‘বিসিসিআই দ্বি-স্তর নীতির বিপক্ষে অবস্থান করছে। কারণ এই নীতির ফলে ছোট দলগুলো সুবিধা বঞ্চিত হবে। বিসিসিআই তাদের সাহায্য করতে চায়। তাদের সুবিধাকে গুরুত্ব দেওয়া আমাদের কর্তব্য।’

তিনি আরো বলেন, ‘দ্বি-স্তর নীতির ফলে নিচের সারির দলগুলো আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। বড় দলগুলোর বিপক্ষে খেলার সামর্থ হারাবে। এটা আমরা চাই না। আমরা ছোট দলগুলোর পাশে দাঁড়াতে চাই। খেলতে চাই সবার সঙ্গে।’

এর আগে দুই-স্তর টেস্ট নীতির বিরোধিতা করেছিল শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট (এসএলসি) ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তবে এই নীতিকে স্বাগতম জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। এ ব্যাপারে বিসিবির সহ-সভাপতি মাহবুবুল আনাম বলেছিলেন, ‘আমরা যদি ভালো দলগুলোর বিপক্ষে ওয়ানডে না খেলতাম তবে এতদূর আসতে পারতাম না। আমার উন্নতি পথে হাঁটছি। টেস্টে যদি আমরা বঞ্চিত থাকি তবে পিছিয়ে থাকব। আমাদের ক্রিকেট ক্ষতিগ্রস্থ হবে।’

প্রসঙ্গত, এডিনবার্গে আইসিসির বার্ষিক সভায় দ্বি-স্তর টেস্ট নীতির প্রস্তাবনা পেশ করেন সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন। যেখানে বলা হয় প্রথম স্তরে র‌্যাংকিংয়ের সেরা সাত দল খেলবে। আর পরের স্তরে দুটি সহযোগী দেশ নিয়ে পরের তিনটি দেশ খেলবে। বর্তমানে টেস্টে দশম স্থানে রয়েছে জিম্বাবুয়ে। আর বাংলাদেশের অবস্থান নবম।






মন্তব্য চালু নেই