মেইন ম্যেনু

যে কারণে মাঠে আগ্রাসী কোহলি

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর অ্যারোন ফিঞ্চকে সরিয়ে টি-টোয়েন্টিতে সেরা ব্যাটসম্যানের আসনটি দখল করেছেন বিরাট কোহলি। শুধু টি-টোয়েন্টি নয়, টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটেও নিয়মিত নজরকাড়া পারফরম্যান্স করেন তিনি।

তবে, খেলোয়াড় হিসেবে কোহলির সুনাম থাকলেও ব্যক্তি হিসেবে তার বিরুদ্ধে অনেকের অভিযোগ আছে। খেলার মাঠে প্রায়ই আগ্রাসী ভূমিকায় দেখা যায় তাকে। মাঝে মধ্যে বিপক্ষ দলের খেলোয়ড়দের সঙ্গে বাগ-বিতণ্ডায়ও জড়িয়ে পড়েন তিনি।

এবার অস্ট্রেলিয়া দলের অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে ভিডিও চ্যাটে তার এই আগ্রাসী ভূমিকার কারণ ব্যাখ্যা করলেন কোহলি।

বিরাট কোহলি বলেছেন, “আমার মনে হয় এর পেছনে আমার পরিবারের একটা ভূমিকা রয়েছে। আমার বাবার রাশি সিংহ। বাবা লড়াই করতে জানতেন। নিজের উপর বরাবর বিশ্বাস রেখেছেন। তবে পরিবারের পাশাপাশি দিল্লির সিস্টেমে বড় হওয়াটাও একটা কারণ।”

‘দিল্লির সিস্টেম’ ব্যাপারটা কী রকম। পরে ব্যাখ্যা করে বিরাট যোগ করেন, “এই সিস্টেমে উঠে আসতে গেলে সবসময় লড়াই করতে হয়। যেটা মানসিকভাবে খুব শক্তপোক্ত করে তোলে। আশপাশের সবকিছু ভুলে গিয়ে যেটা চায় শুধু তাতেই ফোকাস করি।”

কোহলি বলেন, “আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আসার আগে এটাই আমি চেয়েছিলাম। কখনও মাঠে নামা এগারো জনের মধ্যে এক জন হতে চায়নি। বিপক্ষের টার্গেট হতে চেয়েছি। যাকে প্রথমেই আউট করতে চাইবে ওরা।”

এ সময় শচীন টেন্ডুলকারের প্রশংকা করে বিরাট কোহলি বলেন, “দেশের হয়ে খেলতে নেমে শচীন দিনের পর দিন যা যা করেছে সেগুলো আমায় প্রেরণা দিয়েছে। শচীনকে দেখেই আমার ক্রিকেটে আসা।”

সঙ্গে বিরাট যোগ করেন, “যে জায়গাগুলোতে আমি উন্নতি করতে চেয়েছি, শচীন সেগুলোয় আমায় সাহায্য করেছে। সেরকম কিছু দেখলে শচীন নিজেই আমায় টিপস দিত। শচীনের মত বিরাট মাপের ক্রিকেটার এসে এভাবে তরুণ ক্রিকেটারদের পরামর্শ দিচ্ছে, এটা ভাবাই যায় না।”






মন্তব্য চালু নেই