মেইন ম্যেনু

যে কারণে মুস্তাফিজের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা প্রবল

শুক্রবার রাতে ছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ফাইনালে ওঠার লড়াই। অথচ এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে একাদশে ছিলেন না বাংলাদেশের বোলিং বিস্ময় মুস্তাফিজুর রহমান। মাংসপেশিতে সামান্য টান পাওয়ার কারণেই নাকি তাকে একাদশের বাইরে রাখা। বলেছেন সানরাইজার্স অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। তবে তার ইনজুরিটা যৎসামান্য।

এখন প্রশ্ন, ফাইনালে কি খেলছেন কাটার বয়? উত্তর হতে পারে, হ্যাঁ। একাদশ চূড়ান্ত হয় ম্যাচ শুরুর কিছু আগে। ম্যাচ রবিবার রাতে। মানে এখনো প্রায় দুই দিন সময়। এই সময়ের মধ্যে নিশ্চয়ই অবস্থার উন্নতি হবে মুস্তাফিজের।পুরোপুরি না সারলেও অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেই তাকে একাদশে নেওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

আশিস নেহেরা ইনজুরিতে।ফাইনাল খেলা হবে না তার।মুস্তাফিজের ইনজুরির কারণে প্রথমবার সুযোগ পাওয়া কিউই ফাস্ট বোলার ট্রেন্ট বোল্ট তেমন কিছু দেখাতে পারেননি।চার ওভারে তিনি রান দিয়েছেন ৩৯। মানে ওভার প্রতি ৯.৭৫। অথচ পুরো টুর্নামেন্টে মুস্তাফিজ ওভার প্রতি রান দিযেছেন ৬.৭৩। মানে মুস্তাফিজের বিকল্প হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি বোল্ট। তাতে মুস্তাফিজের কদর আরো বেড়ে যাওয়ার কথা হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক-কোচের কাছে।

ফাইনালের মতো বড় ম্যাচে ফের বোল্টকে একাদশে রেখে নিশ্চয়ই ঝুঁকি নিতে চাইবেন না টিম ম্যানেজমন্ট।তাই কিছুটা আনফিট থাকলেও ফাইনালে মুস্তাফিজকে নামানোর সম্ভাবনা প্রবল।

পুরোপুরি ফিট না হয়ে ম্যাচ খেলার নজীর ক্রিকেটে ভুরিভুরি। ১৯৯২ বিশ্বকাপে নিজের কাঁধ ম্যাসাজ করতে করতে বল ছুড়তে দেখা গেছে গ্রেট ইমরান খানকে। বাংলাদেশ দলেই আছে সেই দৃষ্টান্ত।দলের প্রয়োজনে অনেকবার কিছুটা ইনজুরি উপেক্ষা করে মাঠে নেমেছেন মাশরাফি, সাকিব, মুশফিকরা।

ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুস্তাফিজকে নিয়ে ঝুঁকি নেওয়া হয়নি। কিন্তু পরিস্থিতি বলছে, শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে মুস্তাফিজের মতো গুরুত্বপূর্ণ সদস্যকে কিছুতেই একাদশের বাইরে রাখতে চাইবে না সানরাইজার্স টিম ম্যানেজমেন্ট।






মন্তব্য চালু নেই