মেইন ম্যেনু

যে খাবারগুলো আপনার ডায়েট প্ল্যানের ক্ষতি করে

আপনি যদি ওজন কমাতে চান তাহলে আপনাকে আপনার লক্ষ্য অর্জনের জন্য উপযুক্ত ডায়েট প্ল্যান অনুসরণ করতে হবে। আপনার পছন্দের সব খাবারই আপনি খেতে পারবেন না এবং কিছু খাবারের বিষয়ে আপনাকে সচেতন হতে হবে যা আপনার ডায়েট প্ল্যানের ক্ষতি করতে পারে। উপযুক্ত খাদ্য পরিকল্পনায় সঠিক মাত্রার প্রোটিন, ফ্যাট, ফাইবার এবং কার্বোহাইড্রেট থাকে। যে খাবারগুলো আপনার ডায়েট প্ল্যানের ক্ষতি করে সেগুলোর বিষয়েই জেনে নিব আজ।

১। ইনস্ট্যান্ট ওটমিল

ওটমিল এর নাম দেখে আপনি নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন? হ্যাঁ ইনস্ট্যান্ট ওটমিল এ চিনি থাকে যা রক্তে চিনির মাত্রা বৃদ্ধি করতে পারে। এর ফলে আপনার ওজন ও বৃদ্ধি পেতে পারে।

২। প্রোটিন বার

স্বাস্থ্যকর মনে হলেও প্রোটিন বার আসলে স্বাস্থ্যকর নয় যতোটা বিজ্ঞাপনে দেখানো হয়। প্রোটিন বারে প্রচুর চিনি থাকে যা আপনার ডায়েট প্ল্যানের ক্ষতি করতে পারে।

৩। এনার্জি ড্রিংক ও কোমল পানীয়

এনার্জি ড্রিংক পান করলে আপনি হয়তো তাৎক্ষণিক ভাবে এনার্জি পাবেন কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই আপনি ক্লান্ত অনুভব করবেন। এর কারণ এনার্জি ড্রিংকের চিনির উপস্থিতি। স্মুদির ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য যদিনা ঘরে তৈরি করেন।

৪। ননী যুক্ত দুধ ও মিষ্টি দই

দুধ এবং দই এর বিষয়েও সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। দুধ ও দই ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ হওয়ায় শরীরের জন্য খুবই উপকারী। কিন্তু এদের মধ্যেও চিনি থাকে। প্যাকেট জাত দুধ ও মিষ্টি দই এড়িয়ে চলুন।

৫। ফ্রেঞ্চ ফাই ও পটেটো চিপস

আস্ত আলু স্বাস্থ্যকর এবং পেট ভরা রাখতেও সাহায্য করে। কিন্তু ফ্রেঞ্চ ফাই ও পটেটো চিপস স্বাস্থ্যকর নয়। কারণ এগুলোর ক্যালরি বেশি থাকে এবং এগুলো খাওয়া হয় বেশি। পর্যবেক্ষণ মূলক গবেষণায় দেখা গেছে যে, এগুলো ওজন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এছাড়াও এগুলোতে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান অ্যাক্রাইলেমাইডেস থাকে। সিদ্ধ আলু খাওয়া সবচেয়ে ভালো।

৬। সাদা পাউরুটি

সাদা পাউরুটি রিফাইন্ড করে অর্থাৎ মসৃণ ময়দা দিয়ে তৈরি করা হয় এবং এতে চিনি ও থাকে। এর গ্লাইসেমিক ইনডেক্স ও অনেক বেশি এবং ব্লাড সুগার লেভেল দ্রুত বৃদ্ধি পায় সাদা পাউরুটি খেলে। তাই এর পরিবর্তে লাল আটার তৈরি পাউরুটি বা ঘরে তৈরি আটার রুটি খান।

৭। আইসক্রিম

খুবই সুস্বাদু আইসক্রিম লোভনীয় একটি খাবার হলেও এটি অস্বাস্থ্যকর। এর ক্যালোরির পরিমাণ বেশি থাকে এবং চিনিতে ভরপুর থাকে। অল্প পরিমাণে খেলে তেমন সমস্যা নেই কিন্তু একবারেই অনেকটুকু আইসক্রিম খেয়ে ফেলা সম্ভব। কম চিনি, ফল ও দই দিয়ে ঘরে তৈরি আইসক্রিম খেতে পারেন।

৮। পিজা

পিজা জনপ্রিয় ফাস্ট ফুড হলেও অস্বাস্থ্যকর যদি সেটা বাণিজ্যিকভাবে তৈরি করা হয়। উচ্চ মাত্রার ক্যালরি থাকার পাশাপাশি এটি তৈরি হয় রিফাইন্ড ময়দা ও প্রক্রিয়াজাত মাংস দ্বারা। এজন্য ঘরে তৈরি পিজা খাওয়া নিরাপদ।






মন্তব্য চালু নেই