মেইন ম্যেনু

যে ত্বকে যে সানস্ক্রিন

দোর গোড়ায় উকি দিচ্ছে মিষ্টি রোদের দুষ্টু লুকোচুরি। শহরে টের না পেলেও গ্রামের সকাল আর সন্ধ্যাটা ভালো ভাবেই জানান দিচ্ছে শীতের আগমন। শীতের দিন আসলে মন একটুখানি উষ্ণতার লোভে হতে চায় রোদ্রস্নাত। এই সুযোগে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি প্রবেশ করে ত্বকের মধ্যে। রশ্মির ইউভি-এ ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ সৃষ্টি করে, পোড়া দাগ হতে পারে আর হতে পারে ক্যানসার পর্যন্ত। এর হাত থেকে রেহাই পেতে চাই সচেতনতা।

সানস্ক্রিন এমন একটি আবরণ, যা ত্বকে লাগালে সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মির প্রভাব থেকে মুক্তি দেয়। তাই দরকার আপনার ত্বকের ধরন বুঝে সানস্ক্রিনের ব্যবহার। বাজারে বিভিন্ন ধরনের সানস্ক্রিন পাওয়া যায়। যেমন অয়েন্টমেন্ট, ক্রিম, জেল, লোশন, স্প্রে, পাউডার, ওয়াক্স স্টিক ইত্যাদি।

যে ত্বকে যেমন সানস্ক্রিন

শুষ্ক ত্বকের জন্য সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করা ভালো। লোশন ভালো তৈলাক্ত ত্বকের জন্য। আবার শরীরের রোমশ অংশে ব্যবহারের জন্য জেল বেছে নিতে পারেন। চোখের চারপাশের ত্বকের কালো দাগ দূর করা এবং সুরক্ষায় ওয়াক্স স্টিক ব্যবহার করা যেতে পারে। যাদের ত্বক বেশি তৈলাক্ত, তারা তেলমুক্ত সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করুন। সানব্লক পাউডারও ব্যবহার করতে পারেন। শিশুদের ত্বকের জন্য আলাদা সানস্ক্রিন আছে। সেগুলো বেছে নিতে পারেন। যাদের ত্বক বেশি স্পর্শকাতর তারা শিশুদের সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে পারেন। যারা বাইরে খেলাধুলা করেন, তাদের অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। সাতার কাটার আগে পানিরোধক সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন।

আমাদের দেশের আবহাওয়া এসপিএফ (সান প্রটেকশন ফ্যাক্টর) ৪০-এর বেশি সানস্ক্রিন উপযোগী। এর কম হলে তার কার্যকারিতা তেমন নেয়। তবে শিশুদের ক্ষেত্রে এসপিএফ ১৫ হলেই যথেষ্ট। বাজারে আপনি সানস্ক্রিন ও সানব্লক—দুই ধরনের পণ্যই পাওয়া যায়। তবে সবচেয়ে ভালো কাজ করে সানব্লক।

ব্যবহারবিধি

শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা সারা বছরই দিনের বেলায় বাইরে যাওয়ার আগে ত্বকের খোলা অংশে সানস্ক্রিন লাগানো জরুরি। মেকআপের আগেও এটি ব্যবহার করা যায়। অথবা সানস্ক্রিনযুক্ত মেকআপের নেয়া যেতে পারে। সঠিক নিয়মে সানস্ক্রিন লাগানো গেলে ত্বকের বার্ধক্য ও পুড়ে যাওয়া ঠেকানো সম্ভব। বাইরে বের হওয়ার ১৫-৩০ মিনিট আগে সানস্ক্রিন লাগানো উচিৎ। বেলা ১১টা থেকে বিকেল তিনটা পর্যন্ত সূর্যের রশ্মিটা বেশি প্রখর। তাই এ সময় নিয়মিত দু-তিন ঘণ্টা পরপর সানস্ক্রিন লাগালে ভালো হয়।

সানস্ক্রিনের দরদাম

ভালো কোন বিক্রয় কেন্দ্র কিম্বা চেইন সপগুলোতে পেয়ে যাবেন আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী সানস্ক্রিন। এর পাশাপাশি ড্রাগ হাউসগুলোতেও পাবেন সানস্ক্রিন। গার্নিয়ার সানস্ক্রিন লোশন পাবেন ১৮০ টাকায়, লেডি জায়না সানস্ক্রিন লোশন ও ক্রিম পাবেন ১৮০ টাকায়, জনসন সানস্ক্রিন ক্রিম লোশন (শিশুদের) পাবেন ৯৫০ টাকায়, সান ফর্মুলা ক্রিম ও লোশন ১১০০ টাকায়, ল্যাকমে লোশন ১৫০ টাকা, নিভিয়া সান ৩৫০ টাকা, স্টিভস সানব্লক ৩৫০ টাকায়, নিউট্রিজিনা (তেলমুক্ত) সানস্ক্রিন লোশন ৬৫০-৮০০ টাকা। ফান ইন সান ৫৬০ টাকা, হাওয়াইয়ান ট্রপিক ৬৫০ টাকা, সানস্ক্রিনযুক্ত লিপবাম ১৫০-২০০ টাকা।






মন্তব্য চালু নেই