মেইন ম্যেনু

যে দেশের প্রায় ১০ হাজার মানুষ পশুর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করে!

সুইজারল্যান্ডে বিভিন্ন প্রাণী বিশেষ করে ঘোড়ার ওপর যৌন নিপীড়ন মারাত্মকভাবে বাড়ছে। ২০১৪ সালে দেশটিতে এ ধরনের যৌন নিপীড়নের ১৭০৯টি ঘটনা নথিভুক্ত করা হয়। এক পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, এ বছর পশুর ওপর যৌন নিপীড়নের ঘটনা গত ১২ মাসের তুলনায় ১৫৪২টি বেশী ঘটেছে।

দেশটির পশু অধিকার নিয়ে কাজ করছে ‘টাইয়ার ইম রেকট’ নামে একটি সংস্থা। তারা বলছে, গত এক দশকে পশুর ওপর যৌন নিপীড়নের ঘটনা তিনগুণেরও বেশী বেড়েছে, যা সুইজ্যারল্যান্ডের জন্য সত্যিই শঙ্কার বিষয়।

সংস্থাটি বলছে, ঘোড়ার ক্ষেত্রে দেখা গেছে ১০ ভাগ ঘটনায় ওদের ওপর চালানো পাশবিকতার জন্য চিকিৎসা দিতে হয়েছে।

পশু অধিকার নিয়ে সোচ্চার ওই সংস্থাটির আইন উপদেষ্টা রুট্টিম্যান বলেন, এই হার থেকেই বোঝা যায় অন্য পশুর ওপরও কী ধরনের পাশবিকতা চালানো হয়।

তিনি আরও বলেন, গত বছর ১০৫টি ঘোড়ার ওপর চরম নির্দয় আচরণের ঘটনা নথিভুক্ত করা হয়। যদিও প্রকৃত ঘটনা আরও অনেক বেশী।

সংস্থাটি বলছে, সুইজ্যারল্যান্ডে প্রায় দেড় লাখ লোক ঘোড়া পালনের বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত। দেশটিতে প্রায় ১৮ হাজার ঘোড়ার খামার রয়েছে।

ইউরোপের এ দেশটির জনসংখ্যা প্রায় ৮০ লাখ। দেশটির দ্য ২০ মিনিউটেন পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, দেশটির প্রায় ১০ হাজার মানুষ পশুর সঙ্গে যৌন সম্ভোগ করে।






মন্তব্য চালু নেই