মেইন ম্যেনু

যে দেশে চাকরি দেওয়া হচ্ছে কবুতর’কে

মহিলাদের শরীরে ক্যান্সারের কোষ সনাক্ত করতে সক্ষম কবুতররা। সম্প্রতি আমেরিকায় এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমনই অবাক করা এক তথ্য। কবুতররা যে মহিলাদের শরীরের ক্যানসার সংক্রামক কোষকে সনাক্ত করতে পারেন, এই আবিষ্কার অবাক করেছে বিজ্ঞানীদেরও।

বায়োপসি এবং ম্যামোগ্রাম স্ক্যানের মাধ্যমেই এটা প্রমাণ করে দেখিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যার ফলে মার্কিন মুলুকে অনেক হাসপাতালেই দেখা যাচ্ছে চিকিৎসকদের সঙ্গেই ‘চাকরি’তে রাখা হচ্ছে কবুতরদেরকেও। বিশেষ করে মহিলাদের ক্যানসার সনাক্ত করতে পায়রাদেরকে সব থেকে বেশি কার্যকারি ভূমিকা পালন করতে দেখা যাচ্ছে।

মার্কিন বিজ্ঞানীদের গবেষণার প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ৮৫ শতাংশ ক্ষেত্রে পায়রারা সঠিক ভাবেই শরীরের ক্যানসার কোষ গুলিকে সনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে।

তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হলে শতাংশের হার আরও বাড়বে বলেই মনে করছেন অধ্যাপক রিচার্ড লেভেনসন। তার মতে, “একটি কবুতর একজন চিকিৎসকের মতই বলে দিতে পারছে ক্যানসারের স্টেজ। ক্যানসার শরীরের কতটুকু জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে, তা অনায়েসেই বলে দিচ্ছে কবুতর।”

কীভাবে এই অসাধ্য সাধন হচ্ছে? বিজ্ঞান বলছে মানুষের মতই কবুতরদের মস্তিষ্কেও রয়েছে নিউরাল পাথওয়ে। কবুতরের মাথার আকার মানুষের তুলনায় অনেক ছোট হলেও নিউরাল পাথওয়ের জন্যই কবুতররা ক্যানসার কোষ সনাক্ত করতে সক্ষম।






মন্তব্য চালু নেই