মেইন ম্যেনু

যে শিল্পকর্ম তাক লাগিয়ে দেয় (ভিডিও)

প্রাগৈতিহাসিককালে কাঠের গায়ে খোদাই করে বিভিন্ন ইতিহাস ও ঘটনার কথা তাদের ভাষায় লেখা হত। আধুনিক যুগের অনেক আগেই কাঠের মাধ্যমে শিল্পকর্ম তৈরির প্রচলন শুরু হয়। আর আধুনিক যুগে তো কাঠ খোদাই করে শিল্পকর্ম (উডেন কার্ভিং) তৈরির বিষয়ে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাও দেওয়া হয়।

কাঠের গায়ে খোদাই করা শিল্পকর্মের অতীতে যেমন কদর ছিল এই অত্যাধুনিক সভ্যতায়ও সেই কদর কোনো অংশে কমেনি। কাঠের শিল্পকর্মের কাছে অন্যান্য শিল্পকর্ম অনেক ক্ষেত্রেই ম্লান হয়ে যায়। উডেন কার্ভিংগুলো কখনো কখনো অনন্য, অসাধারণ হয়ে থাকে। তবে কাঠের গুঁড়ি খোদাই করে তৈরি করা যে শিল্পকর্মটি তুলে ধরতে যাচ্ছি সেটা নিঃসন্দেহে বিস্ময়কর ও তাক লাগানো।

চীনের চারুশিল্পী ঝেং চুনহুই ২০১৩ সালে কাঠের গুঁড়িতে খোদাই করে যে শিল্পকর্ম তৈরি করেছিলেন সেটা বিশ্বরেকর্ড গড়ে গিনেজ বুকে ঠাঁই করে নিয়েছিল। এই শিল্পকর্মটি তৈরি করতে চার-চারটি বছর সময় লাগে ঝেংয়ের।

৪০ ফুট লম্বা একখণ্ড কাঠের গুঁড়িতে তিনি এই শিল্পকর্ম সৃষ্টি করেন। কাঠের গুঁড়ি খোদাই করে তিনি যে শিল্পকর্ম তৈরি করেছেন সেটার দৃশ্যাবলি মূলত চীনের বিখ্যাত পেইন্টিং ‘অ্যালোং দ্য রিভার ডিউরিং দ্য কুইংমিং ফেস্টিভ্যাল’ এর অনুলিপি। যা এক হাজার বছর আগে সৃষ্টি করা হয়েছিল।

অবশ্য এটার অনুলিপি আরো অনেকেই তৈরি করেছেন। তবে ঝেং একখণ্ড কাঠের গুঁড়িতে ‘অ্যালোং দ্য রিভার ডিউরিং দ্য কুইংমিং ফেস্টিভ্যাল’ এর অনুলিপি তৈরি করে বিশ্বরেকর্ড গড়েন। যা দেখতে রীতিমতো বিস্ময়কর। জটিল এই চিত্রকর্মে ফুটে উঠেছে নৌকা, সেতু, ভবন ও ৫৫০ জন মানুষের প্রতিচ্ছবি।

পুরো চিত্রকর্মটি লম্বায় ১২.২৮৬ মিটার, উচ্চতায় ৩.০৭৫ মিটার ও চওড়ায় ২.৪০১ মিটার। শিল্পকর্মটির সুখ্যাতির কারণে এটাকে চীনের মোনালিসা নামে ডাকা হচ্ছে। চলুন ছবি ও ভিডিওতে দেখে নেওয়া যাক অনিন্দ সুন্দর এই শিল্পকর্মটি।

tree tree1 tree3 tree4






মন্তব্য চালু নেই