মেইন ম্যেনু

যে ১০টি কাজ সৌদিতে নিষিদ্ধ

যে ১০টি কাজ সৌদি আরবে নিষিদ্ধ সেসব বিষয়ে আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। অবশ্য বিশ্বের অনেক দেশেই এসব কাজ স্বাভাবিক। যে ১০টি কাজ সৌদিতে নিষিদ্ধ তা জেনে নিন।

১. সৌদি আরবে অবিবাহিত পুরুষ ও মহিলা কখনোই জনসম্মুখ্যে সাক্ষাৎ করতে পারে না। রেস্টুরেট ও শপিং মলের মতো জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত এলাকায় অবিবাহিত পুরুষ-মহিলা কখনো কথাও বলতে পারে না। শুধুমাত্র বিবাহিত হলেই উন্মুক্ত এলাকায় কথা বলতে পারে। সৌদিতে তা খুবই স্বাভাবিক।

২. পোষা প্রাণী পালন করা তো দূরের কথা সৌদিতে রাস্তায় কুকুর-বিড়াল নিয়ে বেরও হওয়া যাবে না। অন্য দেশে সরকারের মাথা ব্যথার কারণ না হলেও সৌদিতে ব্যাপারটা ভিন্ন।

৩. বর্তমান যুগে ফোন ব্যবহার করা হবে কিন্তু তাতে বিভিন্ন ফিচার থাকবে না। ফিচার থাকার কথা স্বপ্নেও ভাবতে পারে না সৌদিবাসী। তাদের ফোনে ক্যামেরাও নেই। ২০০০ সালে সর্বপ্রথম এ নিয়ম করা হয়। কারণ বর্তমান যুগে মোবাইল ফোন দিয়ে নানা অনৈতিক কাজ সম্পাদিত হয়, যা ইসলামের ওপর আঘাত হানতে পারে।

৪. সৌদিদের চলচ্চিত্র দেখতে হলে বাহরাইন যেতে হয়। যেখানে সবুজ বাতির নিচে মদ পানের ব্যবস্থাও আছে। এ কারণে আপনাকে অবশ্যই বিবাহিত হতে হবে।

৫. আপনি যদি সৌদি নারী হন এবং আপনার বয়স যদি ৪৫-এর নিচে হয়, আপনি কখনো একা ভ্রমণ করতে পারবেন না। আপনার সাথে অবশ্যই আপনার বাবা বা স্বামী সফর সঙ্গী হতে হবে।

৬. সৌদিতে ধর্ম স্বাধীনতা নেই। আপনি অন্য ধর্মের হলে জনসম্মুখে আপনি কখনোই উপাসনা করতে পারবেন না।

৭. সৌদি নারীদের জন্য খেলাধুলাও নিষিদ্ধ। তবে ইদানিং স্কুলে মেয়েদের জন্য খেলাধুলা ও শরীরচর্চার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

৮. মহিলারা কিন্তু খারাপ ড্রাইভার নয়, এটা সৌদি সরকারও জানে। এরপরও সৌদিতে মহিলারা কখনোই গাড়ি ড্রাইভ করতে পারে না। অবশ্য সৌদি নারীরা কয়েকবার উদ্যাগ নিয়েও ব্যর্থ হয়েছে।

৯. গান বাজনা অন্যান্য দেশে বিদ্যমান। হতেই পারে। বিশ্বের নানান দেশ তা থেকে প্রচুর অর্থ উপার্জন করলেও সৌদির কোনো স্কুলে গানের শিক্ষার ব্যবস্থা নেই। সৌদির কোনো শপিং মলে জোরে গানও বাজানো যায় না

১০. বিশ্বের সব দেশে ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবস পালিত হয়। কিন্তু সৌদিতে ভালোবাসা দিবস পালিত হয় না। ভালোবাসার রঙ যেহেতু লাল, সেদিন কেউ লাল জামাও পড়তে পারে না। দোকানে গোলাপও বিক্রি করে না। সূত্র : ভিউমিক্স






মন্তব্য চালু নেই