মেইন ম্যেনু

যে ৫টি কারণে স্মার্টফোনে পর্নো দেখবেন না

সকালবেলায় ঘুম থেকে ওঠা থেকে রাত্রে শুতে যাওয়া, স্মার্টফোনটা আপনার সর্বক্ষণের সঙ্গী। কখনও তাতে অনলাইন শপিং করেন, কখনও গেম খেলেন, সিনেমা দেখেন। আর একটু আড়াল পেলে গুগলে সার্চ করে দেখে নেন ‘নীল’ ভিডিও। দেখে তো নিলেন, কেউ জানতেও পারল না আর আপনি সবস্তির নিঃশ্বাস ফেললেন। কিন্তু জানেন কি লুকিয়ে চুরিয়ে স্মার্টফোনে পর্নো দেখা আপনার জন্য কতটা বিপদজনক হতে পারে? শুনলে অবাক হবেন ভারতীয় মোবাইল ডেটা মার্কেটের একটা বিশাল অংশ খরচ হয় স্মার্টফোনে পর্নো দেখার জন্য। কিন্তু স্মার্টফোনে এই কাজটি মোটেও করা উচিত নয়। কেন? জেনে নিন তার ৫টি কারণ।

১। র‍্যানসামওয়্যার
র‍্যানস্যামওয়্যার হল এক ধরণের ম্যালিসিয়াস সফটওয়্যার যা স্মার্টফোনকে লক করে দেয়। টাকার বিনিময়ে এই লক খোলা যায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পর্নো সাইটগুলোতে ভেসে ওঠে কিছু পপ-আপ আর সেও সেই পপ-আপ লক করে দেয় মোবাইল। এরপর অনলাইনে টাকা দিলে তবেই ওই লক খোলা যায়। অনেকসময় টাকা দেওয়ার পরও লক খোলে না। চরম বিপদে পরেন স্মার্টফোন ব্যবহারকারী।

২। চাইল্ড পর্নো
চাইল্ড পর্নো দেখা আইনত অপরাধ। কেউ যখন স্মার্টফোনে চাইল্ড পর্নো দেখেন তখন সেই সোর্সকে কাজে লাগিয়ে ওই ব্যক্তিকে বিপদে ফেলতে পারে হ্যাকাররা।

৩। অনলাইন হ্যাকিং
মানুষকে ঠোকানোর জন্য হ্যাকাররা সবসময় ওত পেতে বসে রয়েছে। তাদের এই ফাঁদের একটা অন্যতম জায়গা হল পর্ন সাইট। যারা নিয়মিত পর্নো দেখতে অভ্যস্ত তাদের পর্নো ভিডিও সাইটের বিজ্ঞাপন দেখিয়ে পর্নো দেখতে বাধ্য করে হ্যাকাররা। একবার সেই সাইটে ধুকলে হ্যাকাররা সহজেই চুরি করে নিতে কোনও ব্যক্তির ব্যক্তিগত তথ্য।

৪। অনিচ্ছাকৃত পেইড সার্ভিস
পর্নো সাইটের মাধ্যমে আপনি জড়িয়ে পড়তে পারেন নানারকম পেইড সার্ভিসে। অনিচ্ছাকৃৎ ভাবে মোবাইলে অ্যাক্টিভেট হয়ে যায় কিছু সার্ভিস যা আপনি জানতেও পারেন না। কিন্তু ওই সার্ভিসের জন্য কেটে নেওয়া হয় টাকা।

৫। পর্নো টিকার
পর্ন সাইটে ঢুকলে শুধু যে বিজ্ঞাপনই আপনাকে বোকা বানাবে তা নয়, দেখানো হয় নানা রকম অ্যাপ ডাউনলোড বা আপডেটের লোভ। হ্যাকারদের এই ফাঁদে পা দিলেই হাতছড়া হয়ে যাবে আপনার যাবতীয় তথ্য।






মন্তব্য চালু নেই