মেইন ম্যেনু

যে ৬টি কারণে আপনার ভুলেও ব্যায়াম করা উচিৎ নয়

ব্যায়াম যদি ঠিকঠাক করেন, তাহলে শরীর থেকে মেদ ঝরবে। আর তেমনটা হলে পুরনো জামা বা প্যান্ট আর গায়ে ফিট হবে না। ফলে আবার কেনো নতুন জামাপ্যান্ট।

নিয়মিত শরীরচর্চা নিশ্চয়ই স্বাস্থ্যকর অভ্যাস। কিন্তু তার হ্যাপাও রয়েছে ষোলো আনা। এখানে রইল তেমনই ৬টি অসুবিধার কথা, যেগুলির জন্য আপনার ব্যায়াম করা ছেড়ে দিতে ইচ্ছে করবে—

১. বিরিয়ানি খাওয়া মাথায় উঠবে:
শুধু তো ব্যায়াম নয়, সুস্থ থাকতে গেলে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে খাওয়া-দাওয়াও। আপনার ফিজিকাল ইনস্ট্রাক্টর আপনাকে ক্রমাগত ডায়েট কন্ট্রোল করার জন্য চাপ দেবেন। অতএব বিরিয়ানি বা একটু তেল-মশলাওয়ালা খাবার খাওয়ার সুখ থেকে বঞ্চিত হতে আপনাকে।

২. রাত জাগা বন্ধ:
ব্যায়াম মানেই এনার্জি লস। আর তার মানেই ক্লান্তি। তার পরিণাম, রাত্রে খেয়ে উঠতে না উঠতেই ঘুমে চোখ বুজে আসা। তাহলে রাত জেগে চ্যাট করা, প্রেমিকা/প্রেমিকের সঙ্গে ফোনে প্রেমালাপ, বই পড়া, গান শোনা— সব কিছু মাটি।

৩. জামাকাপড়ের আলমারির দফারফা:
ব্যায়াম যদি ঠিকঠাক করেন, তাহলে শরীর থেকে মেদ ঝরবে। আর তেমনটা হলে পুরনো জামা বা প্যান্ট আর গায়ে ফিট হবে না। ফলে আবার কেনো নতুন জামাপ্যান্ট।

৪. দায়িত্ব এড়ানোর সুখ থেকে বঞ্চিত:
ব্যায়াম, বিশেষত যোগ ব্যায়াম, যদি করেন তাহলে আপনার মানসিক সচেতনতা অনেক বাড়বে। সেক্ষেত্রে অন্য মানুষদের সমস্যার দায় এড়িয়ে চলা হয়তো আপনার পক্ষে আর সম্ভব হবে না। আর কে না জানে, দায়িত্বের হ্যাপাও রয়েছে হাজার।

৫. আহত হওয়ার সম্ভাবনা:
এটা একেবারে বাস্তব সমস্যা। ব্যায়াম করতে গিয়ে, বিশেষত যাঁরা ওয়েট ট্রেনিং করেন, তাঁরা আঘাত পেলেন— এমন ঘটনা আকছার ঘটে।

৬. জীবনের সমস্যাগুলি কম গুরুত্ব পায়:
জিমে বহু সময় কাটান যাঁরা, তাঁরা অনেক সময়েই তাঁদের ব্যক্তিগত জীবনে সময় দিতে পারেন না বেশি। তাতে সমস্যা আরও বাড়ে বই কমে না। যখন আপনার দাম্পত্য সংকট চলছে কোনও তখন স্ত্রীকে সময় দেওয়ার বদলে আপনি যদি জিমে পড়ে থাকেন, তাহলে, বলা বাহুল্য সমস্যার সমাধান হবে না কোনও।






মন্তব্য চালু নেই