মেইন ম্যেনু

যে ৭টি বিষয়ে বাবা তার ছেলেকে শিক্ষা দেবেন

কথিত আছে একজন নারী গর্ভবতী হওয়ার সাথে সাথে “মা” হয়ে যায়, আর একজন পুরুষ বাচ্চা কোলে নেওয়ার পর “বাবা” হন। একজন মায়ের তার অনাগত শিশুর জন্য স্নেহ ভালোবাসার কমতি থাকে না, অপরদিকে একজন বাবা তার শিশুটিকে কত সুন্দর করে বড় করবে সেই চেষ্টায় ব্যস্ত থাকে। একটি শিশুকে বড় করার দায়িত্ব শুধু একা মার নয়, বাবার ওপরেও এই দায়িত্ব বর্তায়। বলা হয় ছেলেরা মায়ের সাথে আর মেয়েরা বাবার সাথে বেশি ঘনিষ্ট হয়ে থাকে। কিন্তু কিছু বিষয় আছে যা প্রতিটি বাবার উচিত তার ছেলে সন্তানকে শেখানো। এ বিষয়গুলো তার ছেলেকে একজন ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য করবে।

১। নারীদের সম্মান করা

এই বিষয়টি ছোটবেলায় আপনি আপনার ছেলে সন্তানকে শিক্ষা দিন। আপনি যদি আপনার সহধর্মীর সাথে খারাপ ব্যবহার করেন, আপনার সন্তানও সেটি শিখবে। নারী তা সে যেই হোক না কেন তাকে সম্মান করানো শেখান। বাড়ির গৃহকর্মীটিকেও রাখুন এই তালিকায়।

২। ভদ্রতা

ছেলে শিশুরা তার মার সাথে থাকলেও অনুসরণ করে তার বাবাকে। এই সময়ে তাকে শিক্ষা দিন কিভাবে কথা বলতে হবে, বড়দের সাথে কেমন ব্যবহার করতে হবে। আপনার নম্রতা, ভদ্রতা, আত্নবিশ্বাস, সৌজন্যতা তাকে শিক্ষা দিন।

৩। ইচ্ছাশক্তি

“তোমার ইচ্ছাশক্তি সবচেয়ে বড় শক্তি, এর সাথে থাক, যদি তোমার ইচ্ছাশক্তি সৎ হয়, তবে তুমি সবকিছু অর্জন করতে পারেব”। আপনার সন্তানের ইচ্ছাশক্তিকে জাগ্রত করুন। নিজের উপর বিশ্বাস রেখে জীবনের সিদ্ধান্তগুলো গ্রহণ করার শিক্ষাটি আপনার সন্তানটিকে দিন।

৪। কিভাবে টাকা খরচ করবে

টাকা উপার্জন,সঞ্চয় এবং খরচ-এই তিন বিষয় আপনার ছেলে সন্তানটিকে শিক্ষা দিন। আপনি তাকে টাকার দায়িত্ব দিলে তার হিসাব নিন, কিভাবে কোথায় টাকা খরচ করবে সে বিষয় স্পষ্ট ধারণা তাকে দিন। আপনার সন্তানকে অপব্যয়ী করে গড়ে তুলবেন না।

৫। সততার শিক্ষা দিন

এই শিক্ষাটি প্রতিটি বাবার তার ছেলে সন্তানকে দিতে হয়। সবসময় সৎ কাজ করা, সৎ পথে চলা, অন্যের অনুপস্থিতিতে অসৎ কাজ না করা। মনে রাখবেন ছোটবেলায় যা শিক্ষা দিবেন, সেটি বড় হয়ে সে মনে রাখবে।

৬। পরিশ্রমী এবং দায়িত্ববান ব্যক্তি হয়ে ওঠা

পরিশ্রম সাফ্যলের চাবিকাঠি। পরিশ্রম ছাড়া কেউ কোনদিন বড় হতে পারে নি। তাই জীবনে সাফল্য অর্জন করতে হলে অব্যশই তাকে পরিশ্রমী হতে হবে। আপনি তাকেস্বাবলম্বী হতে শেখান। ছোটখাটো দায়িত্ব তাকে দিন। এতে আপনার সন্তানটি দায়িত্ববান হয়ে উঠবে।

৭। অন্যকে ভালোবাসা

শুধু নিজেকে নয়, চারপাশের সবাইকে ভালোবেসে বেঁচে থাকাটাই সার্থকতা। নিজেকে ভালোবাসা শুধু স্বার্থপরতা আর কিছুই নয়। মানুষের সাথে সাথে জীব জন্তুর প্রতি ভালোবাসার শিক্ষাটাও আপনাকে দিতে হবে।

একজন বাবার কাছ থেকে তার ছেলের অনেক কিছু শেখার থাকে। তাকে একজন সৎ ও পরিপূর্ণ ভাল মানুষ করে গড়ে তোলার দায়িত্বটা আপনার। আর ভাল কিছু শেখানোর সবচেয়ে ভাল সময়টি হল শিশুকাল।






মন্তব্য চালু নেই