মেইন ম্যেনু

যে ৯টি জিনিস মুখের ত্বক নষ্ট করতে পারে, জানেন কী?

মুখে যা খুশি তাই মাখলে ত্বক তো নষ্ট হবেই, পাশাপাশি খুব তাড়াতাড়ি মুখে বলিরেখা পড়ে যাবে। দৈনন্দিন ব্যবহারের অনেক কিছুই মুখের ত্বকের পক্ষে খারাপ। জেনে রাখুন কী কী…

১) রোজ ডিওডরন্ট স্প্রে করার সময়ে সেটা কি মুখে লেগে যায়? তবে সাবধান। কখনওই যেন এ জিনিস মুখে না লাগে।

২) বেকিং সোডা দিয়ে কোনও স্ক্রাব মুখের ত্বকে ব্যবহার করবে না। এই পদার্থটি মুখের ময়শ্চার শুষে নেয়।

৩) মাথায় শ্যাম্পু লাগিয়ে ফেনা করে সেই দিয়েই যদি মুখ ধোয়ার অভ্যাস থাকে তবে পালটে ফেলুন। শ্যাম্পুতে যে কেমিক্যাল থাকে তা মুখের ত্বকের উপযোগী নয়। ত্বক খসখসে হয়ে যায়।

৪) হেয়ার কালার করার সময়ে খুব সতর্ক থাকবেন। এই রং মুখে লাগলে, সঙ্গে সঙ্গে মুছে ফেলবেন ময়শ্চাইরাজারে ভেজানো তুলো দিয়ে। যদি ভুরু রং করতে হয় তবে তা ভেজিটেবিল ডাই দিয়ে করতে হবে, সাধারণ ডাই বা হেয়ার কালার দিয়ে নয়।

৫) বডি লোশন শুধু ‘বডি’তেই মাখার জন্য, মুখের জন্য নয়। মুখের ত্বক শরীরের অন্যান্য ত্বকের তুলনায় অনেক বেশি সেনসিটিভ হয়। তাই মুখে শুধুই মুখের জন্য নির্দিষ্ট প্রোডাক্টই ব্যবহার করবেন।

৬) মেয়োনিজ হেয়ার প্যাকে ব্যবহার করা যায় কিন্তু মুখের জন্য কখনওই নয়। হেয়ার প্যাক লাগাতে গিয়ে যদি মুখে লেগেও যায় তবে সাবধানে মুছে নেবেন।

৭) হেয়ারস্টাইল সেট করতে অনেকেই ল্যাকার বা হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করেন। অনেকে আবার এই স্প্রেগুলি মেক-আপের উপরে ব্যবহার করেন মেক-আপ স্টে করানোর জন্য। এই অভ্যাসটি মুখের ত্বকের পক্ষে অত্যন্ত খারাপ।

৮) নেল-পলিশ নখে পরার জন্য, এগুলি দিয়ে কপালে বা মুখে কোনও রকম পেইন্ট ঘুণাক্ষরেও করবেন না। ত্বক শুকনো এবং খসখসে হয় যায়।

৯) হেয়ার সেরাম চুলে লাগাবেন কিন্তু মুখে যেন কখনওই না লেগে যায় কারণ এতে যে কেমিক্যাল থাকে তা থেকে ত্বকে র‌্যাশ বা চুলকানি হতে পারে।-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই