মেইন ম্যেনু

যোগ্য নেতৃত্ব না থাকায় দেশে দূরাবস্থা বিরাজ করছে : পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, নীতি নৈতিকতাসম্পন্ন লোক দ্বারা দেশ পরিচালিত না হওয়ায় দেশের অবস্থা ভালো নয়। ন্যায়নীতি ভিত্তিক রাষ্ট্রনীতি এবং সৎ যোগ্য নেতৃত্ব যদি দেশে না থাকে তাহলে দেশের যে কত দুরাবস্থা হয়, রাজনৈতিক অঙ্গন যে কত ভয়াবহ হয় এবং মানুষের জীবন যে কত দূর্বিষহ হয় এর বাস্তব নিদর্শন হলো বাংলাদেশের বিরাজমান রাজনৈতিক অঙ্গন। যার কারণে স্বাধীনতার ৪৪ বছর পরও দেশ শাসনের সঠিক কোন পদ্ধতি গড়ে উঠেনি। পদ্ধতি যা গড়ে উঠেছে তা অত্যন্ত বিভীষিকাময়, হৃদয়বিদারক, ধ্বংসাত্মক, হিংসাত্মক, ভয়ংকর, জংলী ও বর্বর। রাজনীতিবিদরা সন্ত্রাসীদের ভাষায় কথা বলে। আর আইনশৃংখলা রক্ষা কাজে নিয়োজিত বাহিনী ও প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের ভাষায় কথা বলে।
গতকাল বিকালে রাজধানীর টঙ্গি বন্দর ময়দানে আয়োজিত বিশাল ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। এ সম্মেলনে দেশের বরেণ্য উলামা মাশায়েখগণ নসিহত করেন।

পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, পাঠ্যপুস্তকে অধিকাংশ ভিন্ন ধর্মাবলম্বী লেখকদের লেখা প্রবন্ধে, গল্পে ও কবিতায় ফুটে উঠেছে সংখ্যালঘু বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকদের ধমতত্ত্ব ভাষা এবং শব্দ চয়নে রয়েছে হিন্দু ধর্মীয় প্রতিফলন যা শতকরা ৯৫ ভাগ মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদের প্রয়োজন নেই।

তিনি বলেন, পাঠ্যপুস্তক তথা সিলেবাসে ইসলামের নির্দেশনা না থাকার কারণে আমাদের সন্তানেরা তথা নাগরিকেরা নৈতিক মূল্যবোধ হারিয়ে ঘুষ দুর্নীতি মাদকতাশক্ত, ব্যভিচার ও নারী নির্যাতনে ব্যাপৃত হয়ে পড়ছে। পাঠ্যপুস্তকে ধর্মীয় মূল্যেবোধের বিষয় সংযুক্ত করা হলে দেশ, স্বাধীনতা ও ইসলাম রক্ষা পাবে। অন্যথায় দেশ বিজাতীয়দের কব্জায় চলে গেলে আমাদের করার কিছু থাকবে না। এমতাবস্থায় জরুরীভত্তিতে পাঠ্যপুস্তক তথা সিলেবাস সংষ্কার প্রয়োজন। আর এজন্য পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের বিধর্মী চেয়ারম্যানকে বাদ দিয়ে ইসলামের ভাবধারায় উজ্জেবিত একজন শিক্ষাবিদকে চেয়ারম্যান করাসহ নৈতিকতাসম্পন্ন শিক্ষাবিদদের নিয়ে একটি পাঠ্যপুস্তক সংষ্কার কমিটি গঠন করা জরুরী। এধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা চালু থাকলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ছাত্র-ছাত্রীরা ইসলাম থেকে দূরে সরে ভয়ানক অবস্থায় পতিত হবে।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই