মেইন ম্যেনু

যৌতুক নয়, পাত্রপক্ষের দাবি নগ্ন সেলফি!

যৌতুক, সোনাদান বা অন্যকিছু নয়। পাত্রপক্ষের দাবি কনের একটি নগ্ন সেলফি। তবে শেষ প্রর্যন্ত না সেলফি, না সোনাদানা, পুলিশের হাতকড়া ওঠে পাত্রের গোটা পরিবারের হাতে৷

ঘটনা ভারতের মাহরাষ্ট্রের। ৩৩ বছর বয়সী জিতেন্দ্রর বিয়ে ঠিক হয়েছিল তার বাড়ির কাছেই৷ বিয়ের কথা পাকা হওয়ার পর থেকেই পাত্রীর কাছে একটি সেলফির দাবি জানাতে থাকে জিতেন্দ্র৷ তবে তা যেমন তেমন সেলফি হলে চলবে না, হতে হবে নগ্ন সেলফি৷ পাত্রী কিছুতেই হবু বরের এ প্রস্তাবে রাজি না হলে অন্য পথ দেখেন জিতেন্দ্র৷ তখন ৩ লাখ পণের জন্য সে উঠেপড়ে লাগে৷ বারবার জিতেন্দ্র জানাতে থাকে, তার দাবি পূরণ হলে তবেই বিয়ে নইলে বিয়ে নয়৷ পাত্রপক্ষের এহেন ব্যবহারে যারপরনাই বিরক্ত পাত্রীপক্ষ বিয়েই ভন্ডুল করে দেন৷ শুধু তাই নয়, নগ্ন সেলফি এ পণ চাওয়ার কথা জানিয়ে তাঁরা ওই পাত্র ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগও করেন৷ জানা গিয়েছে, সেই অভিযোগের ভিত্তিতে জিতেন্দ্র সহ ওই পরিবারের সদস্যদের গ্রেফতারও করেছে পুলিশ৷

কিন্তু কেন সব ছেড়ে নগ্ন সেলফির দাবি জানিয়ে চলেছিল জিতেন্দ্র? অভিজ্ঞমহলের মতে, এটি ছিল জিতেন্দ্রর পাতা ফাঁদ৷ বিয়ে ঠিক হওয়ার বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে আরও টাকা পণ হিসেবে আদায় করাই ছিল তার লক্ষ্য৷ সেলফি হাতে পেলেই সে ব্ল্যাকমেল শুরু করত বলেই মনে করছেন কেউ কেউ৷ কারও কারও মতে, এ বিকৃত মানসিকতারই পরিচয়৷ আজকের দিনেও বিবাহ নামক সামাজিক প্রতিষ্ঠানটি কোন অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছে, তাইই যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে জিতেন্দ্র ও তার পরিবার৷






মন্তব্য চালু নেই