মেইন ম্যেনু

রং নাম্বারে পরিচয়, তিন মাস ফোনালাপ: অতঃপর যা ঘটলো…

রং নাম্বারে পরিচয়, তারপর তিন মাসের কথোপকথন। প্রেমের টানে প্রেমিক ছুটে এসেছিলেন প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে। কিন্তু বিধিবাম। প্রেমিক যুগলকে যেতে হলো শ্রীঘরে।

ঘটনাটি চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার এনায়েতপুর গ্রামে। প্রেমিকের নাম আনোয়ার হোসেন (২৪) ও প্রেমিকা নারগিস (ছদ্মনাম) (১৫)।
হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুর্শিদুল ইসলাম বুধবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এই যুগলকে সাত দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।
সাজাপ্রাপ্ত প্রেমিক আনোয়ার হোসেন কচুয়া উপজেলার আশ্রাফপুর ইউনিয়নের নতুন বাজার এলাকার সিরাজ মিয়ার ছেলে। তিনি রাজধানীর একটি কারখানার চাকরি করেন। প্রেমিকা নারগিস হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার জনৈক ব্যক্তির নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া কন্যা।

সাজাপ্রাপ্ত মোবাইল প্রেমিক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রথমে রং নাম্বারে পরিচয় হয়েছিল। তিন মাস ধরে আমরা কথা বলেছিলাম। মঙ্গলবার বিকেলে প্রথম দেখা করতে এনায়েতপুরে এসেছি। দেখা করতে আসার পর উঁৎ-পেতে রাখা একদল যুবক আমাকে ধরে মেয়ের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তারা মেয়েকে বিয়ে করা ও দুই লাখ টাকা দাবি করে।’
তখন ছেলের অভিভাবকরা এই খবর পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়। পরে পুলিশ এসে আনোয়ার ও আসমাকে আটক করে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুর্শিদুল ইসলাম জানান, ‘জোরপূর্বক’ ধরে নিয়ে যাওয়া ও চাঁদা দাবির অভিযোগের ‘সত্যতা’ পাওয়ায় আসমাকে সাতদিনের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। একইসঙ্গে অন্য একটি উপজেলা থেকে আসমার সঙ্গে দেখা করতে আসার অভিযোগে আনোয়ারকেও সাতদিনের হাজতবাস করতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই