মেইন ম্যেনু

‘রক্তাক্ত সন্ত্রাস আর হরিলুটের অর্থনীতিতে সরকার টিকে থাকতে চায়’

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্য ও আচরণের সঙ্গে জঙ্গিবাদী বক্তব্য আচরণের কোনো পার্থক্য নেই উল্লেখ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘জঙ্গি ও উগ্রপন্থির পথপ্রদর্শক আওয়ামী লীগ।’

রোববার (১০ জুলাই) দুপুরে নয়াপল্টনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘রক্তাক্ত সন্ত্রাস আর হরিলুটের অর্থনীতিতে সরকার টিকে থাকতে চায়। জঙ্গিবাদ নির্মূলের নামে তারা বিএনপির অস্তিত্ব নির্মূলের চেষ্টা করছে।’

এবারের ঈদের উৎসব মানুষকে উচ্ছ্বসিত করতে পারেনি দাবি করে রিজভী বলেন, ‘ঈদের আগে যে বর্ণনাতীত হত্যাযঞ্জ সংগঠিত হয়েছে তা জাতিকে স্তম্বিত করেছে। ঈদ কেটেছে ভয়ে আতঙ্কে।’

তিনি বলেন, ‘জনগণের দাবি উপেক্ষা করে এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করেছে সরকার। দোষারোপের খেলা অব্যহতভাকে চালিয়ে যাচ্ছে। আনন্দঘন উৎসব সহিংস রক্তপাতে ম্লান হয়ে গেছে।’

রিজভী বলেন, ‘সরকার বিএনপিকে নির্মূল করার পুরোনো ধারাতেই এগিয়ে চলছে। একদলীয় শাসন চিরস্থায়ী করতে চাচ্ছে। জঙ্গিবাদের কথা মুখে বললেও ইচ্ছা করে জঙ্গিবাদের ইস্যু জিইয়ে রাখছে। যাতে জনগণ তাদের পদত্যাদের বিষয়টি আলোচনায় না আনে।’

তিনি বলেন, ‘উগ্রবাদ দমনে সরকার জাতীয় ঐক্যের আহ্বানে আগেও সাড়া দেননি, এখনো দিবেন না। তবে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ সঙ্কট সমাধান সম্ভব।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠটিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুছ তালুকদার দুলু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াস উদ্দিন মামুন প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই