মেইন ম্যেনু

রমজানে জীবন আরো দুর্বিষহ হয়ে উঠবে : রিজভী

রমজান মাসকে সামনে রেখে বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনো মনিটরিং ব্যবস্থা নেই দাবি করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘রমজানে সাধারণ মানুষের জীবন আরো দুর্বিষহ হয়ে উঠবে।’

রোববার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘সামনের মাস থেকে শুরু হবে পবিত্র রমজান মাস। এরই মধ্যে শনিবার একদিনেই রসুন প্রতি কেজিতে দাম বেড়েছে ৭০ টাকা, যা প্রায় ১৬৭ ভাগ। ছোলার দাম বেড়েছে দ্বিগুণ, পিয়াজ ও শাকসব্জির মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে কেজি প্রতি ২০ থেকে ২৫ টাকা। এবার কোথাও কোন নিয়ন্ত্রণ নেই, নেই কোন মনিটরিং ব্যবস্থা।’

তিনি বলেন, ‘ফড়িয়া-দালাল-মধ্যস্বত্ত্বভোগীরা সবকিছু নিজেদের ইচ্ছেমতো নিয়ন্ত্রণ করছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়েই চলেছে। রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীসহ কিছু মানুষের বেতন-ভাতা বৃদ্ধি করা হয়েছে অথচ দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর ওপর এর খড়গ নেমে এসেছে। কারণ, যারা বেতন বৃদ্ধির সুবিধা পাননি তারাই বৃহত্তর জনগোষ্ঠী। সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারির বেতন কিছুটা বৃদ্ধি হলেও জীবনযাত্রার ব্যয় এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে, তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।’

চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর প্রধান নির্বাচনের কমিশনের বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘সিইসি বলেছেন, কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। অথচ নির্বাচন নিয়ে সহিংসতায় শনিবারই ৮ জনের প্রাণ গেছে। প্রাণহানি আর রক্তপাতের নির্বাচন দেশবাসী প্রত্যক্ষ করেছে। অথচ সেটিকে আমলে না নিয়ে সিইসি যে বক্তব্য দিয়েছেন তা কোন সুস্থবোধসম্পন্ন মানুষের পক্ষে বলা সম্ভব কী না, এটি আজ দেশবাসীর কাছে প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে তিনি সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করেননি বরং তিনি নিষ্ঠার সাথে সরকারের চাকুরী করেছেন। তিনি সংবিধান বহির্ভূত বেআইনি কাজ করেছেন বলেই নির্বাচনে এতো রক্তপাত, সহিংসতা ও লোকক্ষয় হয়েছে। নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার যে ভূমিকা রেখেছেন তা ইতিহাসে কালিমালিপ্ত কলঙ্কিত অধ্যায় হিসেবেই বিবেচিত হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতাদের মধ্যে খায়রুল কবির খোকন, হারুনুর রশিদ, আবদুস সালাম, আজাদ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই