মেইন ম্যেনু

রমজানে দোয়া কবুল প্রসঙ্গে বিশ্বনবি

নেকি অর্জনের সীমাহীন সুযোগ ও প্রবৃত্তিকে নিয়ন্ত্রণ করে মহান চরিত্র অর্জনের উত্তম প্রশিক্ষণের মাস এ রমজান। তাকওয়া অর্জনের এ মহান মাসে মুমিনের ওপর অর্পিত হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। রমজানে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন এবং এ সুযোগের সদ্ব্যবহার করে বিশ্ব মুসলিমের উচিত নিজেদেরকে চারিত্রিক অধপতন থেকে রক্ষা করা।

কুরআন অধ্যয়নের মাধ্যমে ঝিমিয়ে পড়া চেতনাকে জাগ্রত করা এবং সকল প্রকার অযাচিত কাজের বলয় থেকে মুক্ত থেকে পরকালের চিরস্থায়ী জীবনের সফলতা অর্জনে আল্লাহর নিকট দোয়া করা। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, এ মাসে দোয়া কবুল হয়। কেননা রমজান মাসে আল্লাহ তাআলা বান্দার সকল প্রার্থনা কবুল করে থাকেন।

এ প্রসঙ্গে হাদিসের ছোট্ট একটি উদ্ধৃতি তুলে ধরা হলো-

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, (রমজানে) প্রতি দিন ও রাতে (জাহান্নাম থেকে) আল্লাহর কাছে অনেক বান্দা মুক্তিপ্রাপ্ত হয়ে থাকে। তাদের প্রত্যেক বান্দার দোয়া কবুল হয়ে থাকে (যা সে রমজানে করে থাকে)। (মুসনাদে আহমাদ)

পরিশেষে…
পবিত্র রমজান মাসে শরিয়ত কর্তৃক যে সব দায়িত্ব ও কাজ অর্পিত হয়েছে কিংবা যা পালন করতে মুসলিম উম্মাহকে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে এবং যা থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে, সেগুলো বিধি-নিষেধ পালন করে আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করলে আল্লাহ তাআলা অবশ্যই বান্দাকে ক্ষমা করে দিবেন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তাঁর বিধি-নিষেধ পালনের মাধ্যমে ক্ষমা লাভ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।






মন্তব্য চালু নেই