মেইন ম্যেনু

রসোগোল্লা নিয়ে কুরুক্ষেত্র! বন্ধ হয়ে গেল বিয়ে

বচসা ক্রমেই হাতাহাতিতে গড়ায়। শুরু হয় বাসন ছোড়াছুড়ি। বরযাত্রীরা কনের বাবাকেও মারধর করে। বেশ কিুক্ষণ ধরে চলে থালা-বাটি-চামচ ছুড়ে দাঙ্গা।

দাঙ্গা বরপক্ষ-কনেপক্ষের মধ্যে। আর কারণটি নেহাৎই অকিঞ্চিৎকর। রসোগোল্লা নিয়ে তীব্র বাদানুবাদের জেরে শেষমেশ বন্ধ হয়ে গেল বিয়েটাই।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সূত্রে খবর, উত্তর প্রদেশের উন্নাও জেলার কূর্মপুর গ্রামের এক বিয়েবাড়িতে ঘটেছে এই নজিরবিহীন ঘটনা। খবর মোতাবেক, বিয়েবাড়িতে খাবার আসরে বরপক্ষের জনৈক ব্যক্তি একটা অতিরিক্ত রসোগোল্লা চান। আর তাই নিয়েই শুরু হয় বচসা। তুমুল বিতণ্ডা শুরু হয় বরের ভাই ও কনের এক আত্মীয়ের মধ্যে। দু’টোর বদলে একটা রসোগোল্লা পাতে পড়াতেই এই বিপত্তি।

বচসা ক্রমেই হাতাহাতিতে গড়ায়। শুরু হয় বাসন ছোড়াছুড়ি। বরযাত্রীরা কনের বাবাকেও মারধর করে। বেশ কিুক্ষণ ধরে চলে থালা-বাটি-চামচ ছুড়ে দাঙ্গা। মারামারি এমন জায়গায় পৌঁছয় যে, এক সময়ে প্যান্ডেলটিও ভেঙে পড়ে। গ্রামের বয়স্করা বিবাদ মেটাতে গিয়ে ব্যর্থ হন। শেষে পুলিশ ডাকা হয়। অচলগঞ্জ থানার প্রদান আধিকারিক মহম্মদ আশরাফ জানিয়েছেন, কনের বাবা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

বাবাকে বরয়াত্রীদের হাতে অপমানিত হতে দেখে বেঁকে বসে কনে। সে জানায়, এমন পরিবারে সে বিয়ে করবে না। ফলে শেষ পর্যন্ত ফিরে আসতে হয় বরপক্ষকেই।-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই