মেইন ম্যেনু

মুন্সির ঘাটায়, জলিল নগর, গহিরা চৌমুহনী ব্যস্ততম রাস্তায় এলোপাতারী গাড়ী পাকিং

রাউজানে যানজটে অতিষ্ট জনজীবন

চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মহাসড়কের রাউজানের মুন্সির ঘাটায়, জলিল নগর বাস ষ্টেশন ও গহিরা চৌমুহনীতে এলোপাতারী গাড়ী পাকিংয়ে যানজটে পথচারী ও যাত্রীদের প্রতিনিয়ত দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিন শত শত পণ্যবাহি ট্রাক, জীপ, যাত্রীবাহি বাস ও সিএনজি অটোরিক্সা, প্রাইভেট কার, মাইক্রোবাস চলাচল করে।

ব্যস্ততম রাঙ্গামাটি সড়কের মুন্সির ঘাটা, জলিল নগর বাস ষ্টেশন, গহিরা চৌমুহনীর সড়কের পার্শ্বে বসে ভাসমান দোকান ও কাঁচা বাজার। সড়কের উপর সিএনজি অটোরিক্সা, জীপ, ট্রাক, বাস এলোপাতারী করে গাড়ী পার্কিং করে রাখে। এলোপাতারী পাকিং করার ফলে প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হয় যানজট। যানজটের ফলে পথচারী, যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। মুমুর্ষ কোন রোগীকে নিয়ে এ্যম্বুলেন্স আটকে পড়ে।

এতে মুমুর্ষ রোগীকে হাসপাতালে নিতে বিলম্ব হওয়ায় রোগীকে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে হয়। শুধুমাত্র কোন ভিআইপি ও রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী সড়ক দিয়ে যাতায়াত করার সময়ে রাউজান থানা পুলিশ, হাইওয়ে থানার পুলিশ সড়ক থেকে এলোপাতারী করে রাখা গাড়ী সরিয়ে সড়ককে যানজট মুক্ত করেন। ভিআইপিরা চলে যাওয়ার পর সড়কে পুণরায় এলোপতারী গাড়ী পাকিং করে রাখা হয়। সড়কের উপর এলোপাতারী পার্কিং করে প্রতিনিয়ত যানজট করে রাখা হলে ও পুলিশ যানজট নিরসনে কোন দায়িত্ব পালন করে না বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

সড়কে যানজট হওয়ায় এলাকার হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন চরম দুর্ভোগে পড়ছে। সড়কের মুন্সির ঘাটায় ও গহিরা চৌমুহনীতে যানজট নিরসের জন্য একজন ট্রাফিক পুলিশ দায়িত্ব পালন করলেও যানজট নিরসন করার চেয়ে যানবাহন থেকে চাঁদা আদায়ে ব্যস্ত তাকে বলে সূত্রে জানা যায়।

রাউজানের জলিল নগর বাস ষ্টেশনে যানজট নিরসনের জন্য কোন ট্রাফিক পুলিশ নিয়োজিত নেই বলে জানা যায়। রাউজান থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, সড়কের যানজট নিরসন করার দায়িত্ব রাউজান হাইওয়ে থানার। তারা দায়িত্ব পালন না করায় উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিদিন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

রাউজান হাইওয়ে থানার ওসি মুজিবুর রহমান বলেন, রাউজান হাইওয়ে থানার পুলিশ হাটহাজারী থেকে রাউজান পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করে আসছে। তবে দ্রুত জলিল নগর বাস ষ্টেশনে যানজট নিরসনে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই