মেইন ম্যেনু

রাজাকারপুত্রকে মনোনয়ন, দলীয় পদ হরালেন প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের শোকজের জবাব না দেয়ায় জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর পদ থেকে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী এড.সায়েদুল হককে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামীলীগ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

একই সঙ্গে তাকে দল থেক বহিস্কারসহ মন্ত্রীসভা থেকে অপসারণেরও দাবি জানানো হয় সভায়।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কাছেও চিঠি লিখবে জেলা আওয়ামীলীগ।

এড.সায়েদুল হক জেলার নাসিরনগর থেকে নির্বাচিত আওয়ামীলীগ দলীয় সংসদ সদস্য।

জেলা আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সিদ্ধান্ত অমান্য করে জেলা আওয়ামীলীগের সঙ্গে কোনো প্রকার সমন্বয় না করে এককভাবে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়াসহ পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ মনোনীত গুনিয়াউক ও হরিপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে তাদের পরাজিত করানোর চেষ্টা, তাদের কর্মী সমর্থকদের পুলিশ দিয়ে হয়রানি, গ্রেফতার করানোর ঘটনায় জেলা আওয়ামীলীগের গত ২৫ জুনের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে মৎস্যমন্ত্রীকে শোকজের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এরপর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত চিঠিতে তাকে শোকজ করা হয়।

কিন্তু এ শোকজ নোটিশকে তিনি আমলে নিয়ে কোনো উত্তর দেননি। এ ঘটনায় জেলা আওয়ামীলীগের শুক্রবারের সভায় দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে শৃংখলা ভঙ্গ করার অভিযোগ এনে তাকে উপদেষ্টা পদ থেকে অব্যাহতি দেয়ার প্রস্তাব করেন কয়েকজন সদস্য। পরে সর্বসম্মতভাবে এ প্রস্তাব পাশ হয়।

একই সঙ্গে ঔদ্যত আচরণ ও অশালীন শব্দে শোকজ নোটিশের জবাব দেয়ায় সভায় নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি রাফিজ উদ্দিন আহমেদকে সাময়িক বহিস্কার করে দ্বিতীয়বার শোকজ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান সরকারকে দ্বিতীয়বার দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ না করার জন্য সতর্ক করা হয়। জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকারের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগ সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জেলা পরিষদ প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারী, জেলা আওয়ামীলীগ সহসভাপতি সাবেক পৌর মেয়র হেলাল উদ্দিন, সহসভাপতি পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবীর, সহসভাপতি সাবেক এমপি এড.শাহ আলম, সহসভাপতি তাজ মো.ইয়াছিন, হেলাল উদ্দিন, এড.আবু তাহের, মুজিবুর রহমান বাবুল, জাতীয় পরিষদ সদস্য আবুল কালাম ভূঞা, যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, মঈনউদ্দিন মঈন, গোলাম মহিউদ্দিন খান খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক এড.মাহবুবুল আলম খোকন, শাহআলম সরকার।






মন্তব্য চালু নেই