মেইন ম্যেনু

৩ দিনেও ফেরত না আসায় বাড়ছে ক্ষোভ ও শংকা

রাজ্জাককে ছাড়েনি মিয়ানমার, হাতকড়া পরানো ছবি প্রকাশ

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বা বিজিবির টেকনাফ ৪২ ব্যাটলিয়নের নায়েক আব্দুর রাজ্জাককে মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশ বা বিজিপি কর্তৃক অপহরণের ৩দিন অতিবাহিত হলেও তাকে ফেরত দেওয়া হয়নি। বিজিবি নায়েককে ফেরত প্রদানের জন্য বিজিবির পক্ষ থেকে দফায় দফায় বিজিপির সাথে পত্র ও অন্যান্য মাধ্যমে যোগাযোগ করার স্বত্বেও বিজিপির রহস্যময়ীতা ঘনীভুত হচ্ছে।

তা ছাড়া বিজিপি তাদের সরকারী ওয়েব সাইডে বাংলাদেশী সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাকে অপমান জনক ভাবে হাতকড়া পরিয়ে ও অন্যান্য অসৌজন্য মূলক আচরণ করায় এবং বিজিবি কর্মকর্তাকে ফেরত প্রদানে গড়িমসি ও রহস্যময়ী আচরণে ক্ষোভ ও শংকা বাড়ছে।

বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সীমান্ত নদী নাফ থেকে মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষী বিজিপি কর্তৃক ধরে নিয়ে যাওয়া টেকনাফ বিজিবির নায়েক আব্দুর রাজ্জাককে গতকাল শুক্রবারও ফেরত দেয়নি মিয়ানমার।

বুধবার বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বা বিজিবি টেকনাফ ৪২ ব্যাটলিয়নের পক্ষ থেকে নায়েক রাজ্জাককে ফেরত চেয়ে মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশ বা বিজিপির নিকট পতাকা বৈঠকের আহবান জানিয়ে পত্র দেওয়া হলে গতকাল শুক্রবার এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মিয়ানমারের পক্ষ থেকে এব্যাপারে কোন ধরণের সৌজন্যতা দেখানো হয়নি।

এই নিয়ে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষীদের মাঝে বুধবার সকালে সংঘটিত গোলাগুলির ঘটনায় সীমান্তের উভয় পাড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে মিয়ানমারের বিজিপি ওয়েব সাইডে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড বা বিজিবির অপহৃত নায়েক আব্দুর রাজ্জাকের সাথে চরম অসৌজন্য মূলক আচরণ করা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তাকে সে দেশের বিজিপি বিভিন্ন ক্যাম্পে নিয়ে গিয়ে হাতকড়া পরিয়ে, তার কাছ থেকে উদ্ধার করা রাইফেল ও অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে বিভিন্ন ভাষায় তাকে কটাক্ষ করে ছবি উঠিয়ে তা প্রচার করা হচ্ছে।

এক প্রতিবেশী দেশের একটি বাহিনীর মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তার সাথে কি ধরণের শোভন আচরণ করতে হয় সে ধরণের নুন্যতম কোন মূল্যবোধ মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যদের আছে বলে মনে হয় না বলে ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছেন উখিয়া নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন পরিষদের মহাসচিব গফুর মিয়া চৌধুরী, উখিয়া সুজন সভাপতি নূর মোহাম্মদ সিকদার, সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম সহ অনেকে মিয়ানমারে এধরণের আচরণের ক্ষোভ ও শংকা প্রকাশ বলেছেন অপহরণের ৩ দিন ও সীমান্ত পথে বন্ধুত্বপূর্ন পরিবেশে ফিরিয়ে আনার সম্ভব না হওয়ায় সরকারের উচিত হবে উচ্চ পর্যায়ের জোর কুটনৈতিক তৎপরতার মাধ্যমে দ্রুত তাকে ফিরিয়ে আনা।

অন্য দিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকায় নিযুক্ত মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করে বিজিবি সদস্যদের অপরহণ ও সীমান্তে গোলাগুলির ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ প্রতিবাদ জানানো হয় এবং দ্রুত বিজিবি সদস্যকে ফেরত প্রদানের আহবান জানানো হয়েছিল। কিন্তু এরপরও মিয়ানমার বিজিবি সদস্যকে ফেরত না দিয়ে তার সাথে অসৌজন্য মূলক আচরণ করা হচ্ছে যা মানবাধিকার লংঘনের সামিল।

গতকাল শুক্রবার টেকনাফ ৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটলিয়ন বা বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল আবুজার আল জাহিদ বলেন, মিয়ানমার তাদের সরকারী ওয়েব সাইডে নায়েক রাজ্জাকের হাতকড়া পরিহিত সহ কয়েক ধরণের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। যা চরম অবমাননাকর ও ষোল কোটি মানুষের অনুভুতিতে আঘাত দেওয়ার সামিল। বিজিবির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে খুবই কঠোর ভাষায় প্রতিবাদ জানানোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

নায়েক রাজ্জাককে ফেরত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মিয়ানমারের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ অনুমতি না মেলায় বিজিবির সাথে পতাকা বৈঠকের সময় দিতে পারছে না বলে বিজিপি থেকে জানানো হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই