মেইন ম্যেনু

রাণীনগরে উদ্বোধনের আগেই ফুট ব্রীজ হেলে পড়েছে

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার মিরাট ইউ’পির হামিদপুর ভক্তের ঘাট নামক স্থানে শ্রীমতখালী খালের উপর পারাপারের জন্য নির্মাণাধীন ফুট ব্রীজটি উদ্বোধনের আগেই হেলে পড়েছে।

নিম্ন মানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার, সংশ্লিষ্ট দপ্তরের যথাযথ নজদারির অভাবে নির্মাণ কাজ শেষ করার আগেই পি¬লার দেবে হেলে পড়ে ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। যে কোন মুহুর্তে ব্রীজটি খালের মধ্যে ভেঙ্গে পড়ে প্রাণহানীর মতো ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

জানা গেছে, উপজেলার মিরাট ইউনিয়নের হামিদপুররে প্রত্যন্ত অঞ্চলে শ্রীমতখালী খালের উপর পারাপারের জন্য ২০১২-২০১৩ইং অর্থ বছরে রাণীনগর উপজেলা পরিষদের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি) এর আওতায় ৪৪ মিটার ফুট ব্রীজ নির্মাণের জন্য ২৯ লক্ষ ৭২ হাজার ৭৩৪ টাকা প্রাক্কলন মূল্যে দরপত্র আহবান করা হয়। শর্ত মোতাবেক রাণীনগরের জাকিয়া বিল্ডার্সের স্বত্বাধিকারি মোঃ ময়নুল হক ভুট্টু ফুট ব্রীজটি নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পায়। তখন থেকেই বরাদ্দ প্রাপ্তি স্বাপেক্ষে কয়েক ধাপে ব্রীজটি নির্মাণ কাজের সিদ্ধান্ত হয়। সেই আলোকে ২০১২-১৩ইং অর্থ বছরে এডিপির আওতায় উক্ত ব্রীজটি সাব-স্টাকচার নির্মাণের জন্য প্রথম ধাপে ৬ লক্ষ ৯৯ হাজার এবং ২০১৪-১৫ইং অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় ৬ লক্ষ টাকা ও ১২ লক্ষ ৭৩ হাজার ৭৩৪ টাকা এবং এলজিএসপি-২ এর আওতায় ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দ প্রদান করে মোট চার ধাপে উক্ত ঠিকাদারের মাধ্যমে ফুট ব্রীজটি নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করার জন্য উপজেলা প্রকৗশলী দপ্তর থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সেই মোতাবেক প্রায় ৪ বছর অতিবাহিত হলেও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের অবহেলা ও উপজেলা প্রকৌশলীর যথাযথ নজরদারির অভাবে ফুট ব্রীজটি হঠাৎ করে দেবে হেলে ভেঙ্গে পরার উপক্রম হয়।

এব্যাপারে হামিদপুর গ্রামের ভক্ত (৩৮), সাজেদুল ইসলাম (৪৮), আব্দুল (৩৬), ধনপাড়া গ্রামের মহির উদ্দিন (৪৪), জানান, ব্রীজটি নির্মানের শুরুতেই নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করায় ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ছে। সেই সময় স্থানীয় জনগণ বাধা দিলেও তারা কোনো তোয়াক্কা করা হয়নি।

উপজেলা প্রকৌশলী মো: সাইদুর রহমান মিঞা জানান, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। কি কারণে ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ছে সে বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই