মেইন ম্যেনু

রাণীনগরে মাইক্রোবাস চালকের মৃতদেহ উদ্ধার

নওগাঁর রাণীনগরে মাইক্রোবাস চালক রহিদুল ইসলাম ওরফে নবির (৩০)নামে এক যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার দেউলিয়া গ্রামের ত্রিমোহনী খালে হাত-পা-মুখ বাঁধা অবস্থায় রহিদুল ইসলামের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত রহিদুল ইসলাম ওরফে নবির নওগাঁ সদর উপজেলার আরজি-নওগাঁর উপ-শেরপুর মহল্লার মৃত আক্কাস আলীর ছেলে।

রাণীনগর থানার ওসি আব্দুল লতিফ খান জানান, সোমবার সন্ধ্যায় রাণীনগর উপজেলার বড়গাছা ইউনিয়নের দেউলিযা গ্রামের ত্রিমোহনী খালে এক যুবকের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী থানায় খবর দেয়। সন্ধ্যায় সাড়ে ৬টার দিকে হাত-পা-মুখ বাঁধা অবস্থায় রহিদুলের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছে মাইক্রোবাসটি ছিনতাই করে রহিদুলের মুখে গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর হাত-পা-বেঁদে লাশ ওই স্থানে ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা।

মৃতদেহের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তার পরনে জিন্সের প্যান্ট ও জিন্সের শার্ট ছিল। নওগাঁ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি,তদন্ত) শামছুল আলম জানান, রহিদুল নওগাঁ সদরের বাপ্পী শাহের মাইক্রোবাস ভাড়ায় চালাতেন।

রবিবার রাত ১১টার দিকে বাপ্পী শাহের সঙ্গে সেল ফোনে সর্বশেষ রহিদুল ইসলামের সাথে কথা হয়। তখন বাপ্পী শাহাকে রহিদুল জানান, রাণীনগর উপজেলার রেলগেট থেকে কয়েকজন যাত্রী ভাড়ায় নিয়ে ঢাকায় যাবেন। সে যাত্রীদের অপেক্ষায় আছেন। এর পর আর কোন কথা হয়নি। সোমবার সকাল থেকে রহিদুল ইসলামের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে রাণীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে বলে রাণীনগর থানার ওসি আব্দুল লতিফ খান জানান।






মন্তব্য চালু নেই