মেইন ম্যেনু

রাণীরবন্দরে পল্লী বিদ্যুতের অহেতুক জরিমানার প্রতিবাদে মানববন্ধন

মোহাম্মদ মানিক হোসেন, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর): দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার রাণীরবন্দরে ব্রয়লার ও লেয়ার অস্বাভাবিক মুল্য বৃদ্ধি ও খামারীদের বিদ্যুৎ বিলের সাথে পল্লী বিদ্যুতের অহেতুক জরিমানার প্রতিবাদে ব্রয়লার ও লেয়ার খামারীরা মানববন্ধন ও সমাবেশ আয়োজন করে। জানা গেছে গত বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টায় রানীরবন্দর জোনাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর অফিসের সামনে পল্লী বিদ্যুতের অহেতুক জরিমানার প্রতিবাদে ব্রয়লার ও লেয়ার খামারীরা মানববন্ধন করেন ।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট খামারীবৃন্দ মো: জামাল উদ্দিন , মো:আজিজার রহমান মো: সাজেদুল ইসলাম ও মমিনুল ইসলাম ছাড়াও আরো অনেকে মুল্যবান বক্তব্য রাখেন । তারা অভিযোগ করে বলেন, রানীরবন্দর জোনাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ দূর্নীতির আখরায় পরিনিত হয়েছে। তাদের কারনে আমদের অহেতুক টাকা গুনতে হচ্ছে। আমাদের বিদ্যুৎ সংযোগ আবাসিক এর অত্ততায় থাকলে তা পরে কৃষি সেচ এর আত্ততা ভুক্ত না করে, সামান্য খামারী ব্যবসায়িক হলেই বাণ্যিজিক সংযোগ করে দিচ্ছে এতে করে বিদ্যুৎবিল অধিক হারে বদ্ধি পাচ্ছে , খামারীরা অভিযোগ করে বলেন, আবাসিক ও কৃষি সেচ এর আত্ততায় সংযোগ করতে চাইলে ৫ শত থেকে ১ হাজার টাকা পল্লী বিদ্যুতকে ঘুষ দিতে হচ্ছে। এ দিকে আবাসিক সংযোগ ৮০ ইউনিটের বেশী হলে কৃষি সেচ এর আ্ত্ততা যুক্ত হাওয়ার নিয়ম আছে । কিন্তু সে নিয়ম না মেনে ৩০ থেকে ৪০ ইউনিট হলেই আবাসিক থেকে বান্যিজিক করে দেওয়া হচ্ছে অন্যথায় গুনতে হচ্ছে অহেতুক জরিমানা।

অপর দিকে অস্বাভাবিক হারে ব্রয়লার ও লেয়ার বাচ্ছার মুল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত বছর মুল্য ছিলো বাচ্ছা প্রতি ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকা কিন্তুু এ বছর প্রতিটি বাচ্ছা নিতে হচ্ছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা। এতে খামারীরা লাভের চেয়ে লচ এ বেশী গুনছে। তাই খামারীরা পল্লী বিদ্যুতের হয়রানি ও বাচ্ছার মুল্য বৃদ্ধি থেকে মক্তি পাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কৃর্তপক্ষের কাছে জোর দাবী জানায়।






মন্তব্য চালু নেই