মেইন ম্যেনু

‘রানা প্লাজা’ ছবিতে অনেক ঝুঁকিপূর্ণ শট দিয়েছি ডামি ছাড়াই : পরীমণি

আগামী ১১ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাচ্ছে পরীমণি অভিনীত আলোচিত ছবি ‘রানা প্লাজা’। গতকাল ‘রানা প্লাজা’ চলচ্চিত্র প্রদর্শনে হাইকোর্টের দেওয়া ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা খারিজ করে দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। যার কারণে ছবিটি মুক্তি দিতে আর কোন ধরনের বাধা নেই। আজ ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে তিনি লিখেছেন ‘আমি জানি না একটা গল্প কিভাবে একটা শক্ত বিষয়ে পরিনত হয়। আপনারা ভাবতেও পারবেন না, এই ছবিতে আমার চোখের পানি, শরীরের রক্ত সবই ছিল সত্য। অনেক ঝুকিপূর্ণ শট দিয়েছি ডামি ছাড়াই। এরকম অনেক অনেক কাহিনী আছে যা বলে শেষ করতে পারবো না।’

ছবির গল্পে দেখা যাবে, গ্রামের এক দরিদ্র পরিবারের মেয়ে রেশমা। তাঁকে ভালোবাসে প্রতিবেশী যুবক টিটু। কিন্তু টিটু তাদের চেয়ে অবস্থাপন্ন বলে তার প্রস্তাবে সায় দিতে চায় না রেশমা। টিটুও হাল ছাড়ার পাত্র নয়। এক দুর্ঘটনায় টিটু রেশমাকে উদ্ধার করে। তখন রেশমা সাড়া দেয় তার প্রস্তাবে।

এর কিছুদিন পর বিয়ে করে টিটু ও রেশমা। তারা ঢাকায় চলে আসে। তখন এক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে কর্মক্ষমতা হারিয়ে ফেলে টিটু। পরিবারের দায়িত্ব মাথায় তুলে নিয়ে রেশমা যোগ দেয় এক পোশাক কারখানায়। রেশমার চাকরিতে যোগদানের ব্যাপারটি সহজে মেনে নিতে পারে না পুরুষশাসিত সমাজ। এ নিয়ে নানা জটিলতার মধ্যে ঘটে যায় রানা প্লাজার দুর্ঘটনা।

পরীমণি-সাইমন ছাড়াও এ ছবিতে অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত, মিজু আহমেদ, কাবিলা, হাবিব খান, শিরিন আলম প্রমুখ। এর কাহিনী ও সংলাপ লিখেছেন মুজতবা সউদ। চিত্রগ্রহণে ছিলেন এ এইচ স্বপন। সংগীতায়োজন করেছেন আলী ইকরাম শুভ। শিল্প নির্দেশনায় ছিলেন কলন্তর, ব্যবস্থাপনায় ছিলেন মান্নান।

২০১৩ সালে সাভার বাজারের কাছে রানা প্লাজা ধসের ১৭ দিন পর ধ্বংসস্তূপ থেকে পোশাককর্মী রেশমাকে উদ্ধারের ঘটনা নিয়ে নির্মিত হয় ‘রানা প্লাজা’ চলচ্চিত্রটি। রেশমাকে উদ্ধারের ওই ঘটনা তখন বিশ্ব গণমাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। ছবিটি প্রযোজনা করেছেন শামীম আক্তার।






মন্তব্য চালু নেই