মেইন ম্যেনু

রানীশংকৈলে অসুস্থ মহিলাকে থাপ্পর মেরে এস আই আজগর ক্লোজ!

সফিকুল ইসলাম শিল্পী, রানীশংকৈল প্রতিনিধিঃ– ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলায় গত ২৬ আগষ্ট শুক্রবার বিকালে থানা এস আই আজগর আলীর বিরুদ্বে রানীশংকৈল বিরাশী গ্রামের আবুল কাসেমের স্ত্রী (৪৫) হোসনেয়ারা ও মেয়ে পারভীন(২৫)কে প্রকাশ্যে চর থাপ্পর মারার অভিযোগ উঠেছে।

প্রত্যক্ষ দর্শীমতে জানা গেছে, থানার সামনে অবস্থিত একটি খাবার হোটেলের দোকানের মালিকের সাথে খাবার নিয়ে কথাকাটি হচ্ছছিলো ইতিমধ্যে ঘটনা স্থলে সিভিল পোশাকে এস আই আজগর আলী এসে হাজির হন। তিনি এসেই কিছু বুঝে উঠার আগেই আবুল কাশেমকে ধমকাধমকি শুরু করেন। এক পর্যায়ে দারোগা আজগর আবুল কাশেমের শার্টের কোলাট ধরলে পাশে থাকা অসুস্থ স্ত্রী হোসনেয়ারা সিভিলে থাকা এসআই আজগরের পা ধরে ক্ষমা চায় এবং স্বামীকে থানায় না নিয়ে যাওয়ার জন্য আকুতি-মিনতি করলে এস আই আজগর বলেন, বেটা তোমাকে থানায় নিয়ে গিয়ে বুঝাবো আমি কে?

তখন সদ্য হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পাওয়া স্ত্রী হোসনেয়ারা তার স্বামীকে কেনো নিয়ে যাচ্ছেন জানেতে চাইলে, সে-সময় দারোগা আজগর অসুস্থ ডাইরিয়ার রুগী হোসনেয়ারকে কিলঘুষি সহ বেধড় মারিপট করেন এসময় হোসনেয়ারা স্বামীর দে’য়া নাকফুলটি থাপ্পরের আঘাতে হাঁড়িয়ে ফেলেন। মেয়ে পারভীন তার মাকে আজগরের হাত থেকে বাঁচাতে গেলে তাকেও বেদড়ক মাপিট করেন। আবুল কাশেমের স্ত্রী হোসনেয়ারা প্রতিবেদককে বলেন, আমার খুব অসুখ! কন্যা পারভীন বলেন,হামাক খুব মাইয়ে ! পরবর্তীতে এলাকার সুধিমহল এই অসহায় লোকদের দারোগার হাত থেকে ছাড়িয়ে হাসপাতালে ভর্তি করে।

এঘটনাটি নিয়ে রানীশংকৈলে পুলিশে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। এলাকার সচেতন মহল পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কৃর্তপক্ষের নিকট এর নিরপক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। তবে, এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দারোগা আজগর আলী। এ বিষয়ে ঠাকুরগাও সার্কেল এসপি আবুল কালাম আজাদ তদন্তে আসেন এবং ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তকরে ব্যাবস্থা নিবেন বলে জানান।

এ বিষয়ে রানীশংকৈল থানার তদন্ত অফিসার সিরাজুল ইসলাম বলেন,তাকে(এস,আই আজগর)কে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই