মেইন ম্যেনু

রাবির ২ শিক্ষার্থীকে খুঁজছে পুলিশ

শিক্ষক রেজাউল হত্যাকাণ্ডের কোনো ব্যক্তিগত কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। মৌলবাদী সংগঠন এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সরদার তমিজউদ্দীন আহমেদ এসব তথ্য জানান।

তিনি আরো জানান, শিক্ষক এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীর হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে খুঁজছে পুলিশ। ওই দুই শিক্ষার্থী ইংরেজি বিভাগের। তারা জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ওই দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে একজনের নাম শরিফুল ইসলাম। তবে অন্যজনের নাম জানাতে চায়নি পুলিশ।

অতিরিক্ত কমিশনার তমিজউদ্দীন জানান, শিক্ষক রেজাউল করিম হত্যার সন্দেহে ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। রিমান্ডে নিয়ে তাদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

আটক পাঁচজনের মধ্যে পুলিশের খোঁজের তালিকায় থাকা ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলামের বাবা আব্দুল হাকিম ও ভাই আরিফুল ইসলামও আছে।

প্রসঙ্গত, ২৩ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাসা থেকে ৫০ গজ দূরে অধ্যাপক রেজাউল করিমকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ওইদিন নগরীর বোয়ালিয়া থানায় একটি মামলা করেন শিক্ষকের ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ। পরে গোয়েন্দা পুলিশকে মামলার তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই