মেইন ম্যেনু

রাবি শিক্ষক হত্যায় মামলা, তদন্ত তদারকিতে কমিটি গঠন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার ঘটনায় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের আসামি করে মামলা হয়েছে।

শনিবার বিকেলে নিহতের ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ বাদী হয়ে মামলাটি করেন। একই সঙ্গে এই মামলার তদন্ত তদারকির জন্য রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) পক্ষ থেকে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বোয়ালিয়া জোনের সহকারী কমিশনার ইবনে গোলাম সাকলায়েন জানান, শিক্ষক রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। বিকেলে নিহত শিক্ষকের ছেলে বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে। মামলাটি বোয়ালিয়া মডেল থানায় দায়ের করা হলেও তদন্তভার দেওয়া হয়েছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে।

তিনি আরও বলেন, একই সঙ্গে মামলার তদন্ত তদারকির জন্য আরএমপির পক্ষ থেকে ৬ সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রধান করা হয়েছে মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সরদার তমিজ উদ্দিন আহমদকে। এছাড়াও উপ-কমিশনার (পশ্চিম) এ কে এম নাহিদুল ইসলাম, বোয়ালিয়া জোনের সহকারী কমিশনার ইবনে গোলাম সাকলায়েন, মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার সুশান্ত চন্দ্র রায়, গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম ও বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন খানকে কমিটির সদস্য করা হয়েছে। এই কমিটির সদস্যরা মামলার তদন্তের বিভিন্ন তদারিক করবেন।

এদিকে, দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর কর হয়েছে। মরদেহটি বুঝে নেন নিহতের ভাগ্নে শরিফুল ইসলাম। পরে বাদ আসর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে শিক্ষক রেজাউল করিম সিদ্দিকীর প্রথম জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। বাদ মাগরিব শালবাগান এলাকায় দ্বিতীয় দফা জানাযার নামাজ শেষে মরদেহ গ্রামের বাড়ি জেলার বাগমারা উপজেলার দরগামারিড়ায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। সেখানে বাদ এশা তৃতীয় দফা জানাযা শেষে দাফন করা হবে।

শনিবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে নগরীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাসার সামনে থেকে মাত্র ১০০ গজ দূরে তাকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। শিক্ষক রেজাউল করিম বাড়ি থেকে নাস্তা করে বের হয়ে হেঁটে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে বের হন। বাসা থেকে বের হয়ে শালবাগান মোড়ে এসে গাড়িতে উঠতেন। কিন্তু বাসা থেকে মাত্র ১০০ গজ দূরে শালবাগান বাজারের পশ্চিম পাশে গলির মধ্যে দুর্বৃত্তরা তাকে পেছন থেকে কুপিয়ে হত্যা করে মৃত্যু নিশ্চিত করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। তার ঘাড়ে তিন থেকে চারটি জখম রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই