মেইন ম্যেনু

রাবি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিক-স্থানীয়দের মারামারি ॥ আহত ৪

ইয়াজিম ইসলাম পলাশ, রাবি প্রতিনিধি: বাস ভাড়া নিয়ে গালাগাল করাকে কেন্দ্র করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিক ও স্থানীয়দের সংঘর্ষে চারজন আহত হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ঢাকাগামী একটি বাস ভাংচুর করে।

আহতরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী প্রসেনজিৎ, কম্পিউটার সায়েন্স এ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এমরান এবং রাজশাহী-ঢাকাগামী শিশির পরিবহনের একটি বাসের দুই হেলপার। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্র এবং রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে নগরীর শিরোইল বাস টার্মিনালে ভাড়া নিয়ে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে রাজশাহী-ঢাকাগামী শিশির পরিবহনের দুই হেলপার বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী তাফসুল ইসলাম পলাশ এবং চতুর্থ বর্ষের তারেককে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। এর জের ধরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর বাজারে শিক্ষার্থীরা শিশির পরিবহনের ওই বাসটি আটক করে হেলপারকে মারধর করে।

এ সময় অন্যান্য বাসের শ্রমিক এবং স্থানীয়রা শিক্ষার্থীদের ধাওয়া দিলে সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা শিশির পরিবহনের ওই বাসটি ভাংচুর করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্য, ছাত্র উপদেষ্টা, ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মুজিবুল হক আজাদ বলেন, বাসের হেলপার শিক্ষার্থীদের গালাগাল করলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেরা হেলপারকে মারধর করেছে। এই নিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে আমরা গিয়ে বিষয়টি মিটিয়ে দিয়েছি।

নগরীর মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, তুচ্ছ ঘটনায় বাসের হেলপারদের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের মারামারি হয়েছে। এ সময় স্থানীয়রা হেলপাদের পক্ষ নেয়। পরে পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন উভয়পক্ষের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি মিমাংসা করে দিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই