মেইন ম্যেনু

রিজার্ভ চুরিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের ১৩ কর্মকর্তা জড়িত

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির সাথে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চার বিভাগের অন্তত ১৩ জন কর্মকর্তার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত সংস্থা সিআইডি। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়াও চলছে। এছাড়া ফিলিপাইন, শ্রীলংকা, চীন ও সিঙ্গাপুরের ২৫ নাগরিককে চিহ্নিত করেছে সিআইডি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের চার বিভাগের ১৩ কর্মকর্তা ফেঁসে যাচ্ছেন রিজার্ভ চুরিতে যোগসাজসের জন্যে। এদের মধ্যে রয়েছে একাউন্ট এ্যান্ড বাজেট বিভাগ এবিডির ব্যাক অফিসের চারজন, আইটি অপারেশন এ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগের তিনজন, ফরেক্স রিজার্ভ এ্যান্ড ট্রেজারি ম্যানেজমেন্ট-এফআরটিডিএম বিভাগের দুইজন ও পেমেন্ট সিস্টেম বিভাগ-পিএসডির চারজন।

১৩ জনের দায়িত্বে অবহেলা বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির জন্যে দায়ী বলে তদন্ত কর্মকর্তাদের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে। আর চুরির সাথে জড়িত হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে ২৫ বিদেশি। এরা ফিলিপাইন, চীন ও শ্রীলংকার নাগরিক।

দায়ী প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে পাঁচ প্রতিষ্ঠান। এগুলো হলো:

১. আরসিবিসি
২ ফিলরেম সার্ভিস করপোরেশন
৩. ইস্টার্ন হাউআই লিজার লিমিটেড
৪. ব্লুমবেরি এ্যান্ড হোটেল
৫. স্যালিকা ফাউন্ডেশন

সিআইডির কর্মকর্তারা বলছেন রিজার্ভ চুরির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে অনেক অজানা তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

ইন্টারপোল ও দূতাবাসসহ ১২ দেশের আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে সমন্বয় করে তদন্ত কাজ চালাচ্ছে সিআইডি। সূত্র: ইনডিপেন্ডেন্ট টিভি

এ বিষয়ে ইনডিপেন্ডেন্ট টিভি’র একটি প্রতিবেদন দেখতে এখানে ক্লিক করুন






মন্তব্য চালু নেই