মেইন ম্যেনু

রিজার্ভ চুরি : ক্ষমা চাইলো ফিলিপাইন ব্যাংক

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অ্যাকাউন্ট থেকে লোপাটের অর্থ লেনদেনে জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছে ফিলিপাইনের রিজাল কর্মাশিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে বিপুল পরিমান এ অর্থ লোপাট নিয়ে দেশটির সিনেট কমিটি ও অ্যান্টি মানি লণ্ডারিং কাউন্সিলের তদন্তে সহায়তারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

বুধবার ব্যাংকটির পক্ষে এক বিবৃতিতে ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি তদন্তে সহায়তারও অঙ্গিকার করা হয়। অর্থ লোপাটের সঙ্গে ব্যাংকের কর্মকর্তাদের যোগসাজোশের যে অভিযোগ উঠেছে তা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয় ওই বিবৃতিতে।

লোপাটের অর্থ লেনদেনে জড়িত থাকার অভিযোগে গত মঙ্গলবার ব্যাংকের জুপিটার শাখার ম্যানেজার মাইয়া সান্তোষ দেগুইতো এবং সহকারী শাখা ম্যানেজার অ্যাঞ্জেলা তোরেজকে বরখাস্ত করেছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

ব্যাংকের আইন উপদেষ্টা মারিয়া সিসিলিয়া ফারনান্দেজ জানিয়েছিলেন, এ লোপাটের অর্থ লেনদেনে জড়িতদের চিহ্নিত করতে আভ্যন্তরীণ তদন্ত হচ্ছে। ওই তদন্তে অন্য কোন কর্মকর্তার যোগসাজোশ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্ক থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অ্যাকাউন্ট থেকে ১০১ মিলয়ন মার্কিন ডলার তুলে নেয় দুবৃত্তরা। লোপাটের ৮১ মিলিয়ন ডলার পাঠানো হয় ফিলিপাইনের রিজাল ব্যাংকে মাকাতির সিটির জুপিটার ব্রাঞ্চের ৪ অ্যাকাউন্টে।

বাকী ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পাঠানো হয় শ্রীলংকার একটি ব্যাংকে। প্রাপকের নামের বানান ভুল থাকায় আটকে যায় ওই টাকা।






মন্তব্য চালু নেই