মেইন ম্যেনু

রেস্টুরেন্টে ওয়েটারের দায়িত্বে বানর!

রেস্টুরেন্টে ঢুকছেন, ভয়ের কারণ নেই। হয়তো ঢোকামাত্রই আতকে উঠতে পারেন। না, ভয়ের কারণ নেই, অর্ডার না দিলেও আপনার কাছে হাজির হয়ে যাবে। আপনি কি খাবেন বা কি নিতে এসেছেন শুধু অর্ডার দেবেন। তবে কোনো রূপসী না, শার্ট-প্যান্ট পরা দুটো বানর।

এমন এক আজব রেস্টুরেন্টের সন্ধান মিলেছে জাপানের উত্তর টোকিওতে। রেস্টুরেন্টটির নাম ‘কায়াবুকিয়া তেভার্ন’। রেস্টুরেন্টটিতে ‘ইয়াট চ্যান’ ও ‘ফুকো চ্যান’ নামের দুটি বানর ওয়েটার হিসেবে কাজ করছে। দেখতে দিব্যি মানুষের মত। আপনার অর্ডার দেয়া খাবারগুলো একটা একটা করে টেবিলে পৌঁছে দেবে।

‘ইয়াট চ্যান’ তার সহকর্মী বানরটির চেয়ে দুই বছরের বড়। ওর বয়স এখন ১৬। ইয়াট চ্যান রেস্টুরেন্টটির টেবিলে ঘুরে ঘুরে শুধু অর্ডার নেয়। আর ‘ফুকো চ্যান’ অতিথিদের খাবার টেবিলে তোয়ালে আর পানীয় সরবরাহ করে।

রেস্টুরেন্টটির মালিক কাউরু অটসুকা। তার পোষা বানর ইয়াট চ্যানের হাতে হঠাৎ একদিন একটা তোয়ালে দিলে বানরটি রেস্টুরেন্টে আগত এক ভোক্তার হাতে তুলে দেয়। সেদিন থেকেই বানর দুটো দিয়ে ওয়েটারের কাজ সেরে নিচ্ছেন তিনি।

বানর দুটি রেস্টুরেন্টে খাবার সরবরাহের সময় সাধারণত সাদা-কালো চেকের জামা পরে থাকে। বানরের এমন কাজ দেখে বেশ মজা পায় খেতে আসা লোকজন। তবে তাদের হাতে টাকা না দিলেও সিদ্ধ সয়াবিনের দানা দিলেই তারা বেশ খুশি।

রেস্টুরেন্টটিতে আসা ক্রেতারা জানান, বানর দুটিকে অর্ডার দেয়া মাত্র নিমেষেই সেগুলো নিয়ে হাজির হয়। তবে মজার ব্যাপার, ওরা মানুষের আকার ইঙ্গিতে সব বুঝতে পারে। সূত্র : ইন্টারনেট।






মন্তব্য চালু নেই