মেইন ম্যেনু

‘র‌্যাবের ৮শ’র বেশি সদস্য বরখাস্ত’

‘কে বলেছে গ্রেফতার হয় না। আপনাদের কাছে তথ্য নেই। র‌্যাবের ৮শ’র মতো সদস্য বরখাস্ত এবং বহুজন কারাগারে আছে।’

ক্রসফায়ারের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত করে কাউকে গ্রেফতার করা হয় না কেন- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু সচিবালয়ে রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

বন্দুকযুদ্ধে মৃত্যুর ঘটনার প্রাথমিক দায় সরকারের বলে স্বীকার করেন তিনি।

এ সময় নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের উদাহরণ দিয়ে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা থেকে শুরু করে পুলিশসহ অন্যান্য বাহিনীর অনেক সদস্য চাকরিচ্যুত হয়েছে উল্লেখ করে বিস্তারিত তথ্যের জন্য সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘যে কোনো গুলিবর্ষণের একটি বিধান আছে। গুলিবর্ষণ হলে সেটাকে লিপিবদ্ধ করতে হয় এবং রিপোর্ট দিতে হয়। এর পর ইন্টারনাল ডিপার্টমেন্টাল একটা ইনকোয়ারি হয় যে, কেন গুলিবর্ষণ করা হল। যদি ওই গুলিবর্ষণের কোনো যৌক্তিকতা খুঁজে পাওয়া না যায় তখন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়।’

তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু না বলে সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা র‌্যাব অফিসে গেলে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।’

বন্দুকযুদ্ধে যেভাবে মানুষ মারা পড়ছে তার দায় কি সরকারের ঘাড়ে আসে না? জবাবে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে দায়টা সরকারের ঘাড়ে আসে। কিন্তু অপরাধীকে গ্রেফতার করে যখন আদালতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় তখন সরকারকে বাহবা দেওয়া উচিত।’

এমন হত্যাকাণ্ড বেড়েই চলেছে, এর কারণ কী- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘যে করবে সেটি তার দায়।’

এ সময় তিনি উদাহরণ দিয়ে বলেন, ‘প্রশাসনের কেউ যদি ঘুষ খায় তাহলে এই দোষ প্রশাসনের নয় ওই ব্যক্তির, কারণ প্রশাসন ঘুষ খায় না। পদক্ষেপ হবে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।’

তিনি বলেন, ‘আমি অত্যন্ত গর্বের সঙ্গে বলতে পারি, শেখ হাসিনার সরকার কোনো হত্যাকাণ্ডের বিষয়েই আইনের বাইরে থাকার সুযোগ দেয় না। বিচারবহির্ভূত কোনো বিষয়ই সরকার অনুমোদন করে না। এটা সরকারের নীতি না।’






মন্তব্য চালু নেই