মেইন ম্যেনু

লতিফ সিদ্দিকীতে গ্রেপ্তারে শফীর আল্টিমেটাম!

সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তারে ফের আল্টিমেটার দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম।সংগঠনটির নেতারা বলছেন, বৃহস্পতিবারের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করতে হবে।

গ্রেপ্তার করা না হলে আগামী শুক্রবার বাদ জুমা বায়তুল মোকাররমের উত্তরগেটসহ রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছে।

লতিফ সিদ্দিকী গত সোমবার তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পান। আওয়ামী লীগ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হলেও তিনি এখনো এমপি। মুক্তি পাওয়ার পরও তিনি তার নিজের সংসদীয় এলাকায় যাননি। বর্তমানে তিনি ঢাকায়ই রয়েছেন।

আজ বুধবার রাজধানীর বারিধারায় জামিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগর আহ্বায়ক মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী।

সংবাদ সম্মেলনে হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সদস্য সচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব, মহানগর হেফাজত নেতা মাওলানা মহিউদ্দিন জাকারিয়া, ওবায়দুল্লাহ ফারুক, আলী আকবর, রুহুল আমিন, রাকিব হাসনাত প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, লতিফ সিদ্দিকী একজন স্বঘোষিত নাস্তিক-মুরতাদ। পবিত্র হজ, মুহাম্মদ (সা.) এবং তবলিগ জামাত নিয়ে কটূক্তি করে কোটি কোটি মুসলমানের হৃদয়ে আঘাত দিয়ে তিনি ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করেছেন। তার মতো স্বঘোষিত নাস্তিককে সরকার এই পবিত্র রমজান মাসে কীভাবে জামিনে মুক্তি দিল এটাই প্রশ্ন।

তিনি বলেন, সরকার ইসলামবিরোধী নাস্তিক লতিফ সিদ্দিকীকে মুক্তি দিয়ে নবী প্রেমিক সর্বস্তরের মুসলমানের অন্তরে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। সেই আগুনের দাবানল প্রশমিত করতে হলে একমাত্র কার্যকরী পদক্ষেপ হল, আল্লাহ, রাসুল (সা.) ও ইসলাম সম্পর্কে কটূক্তিকারীদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান প্রণয়ন এবং স্বঘোষিত মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকীকে ফের গ্রেপ্তার করে তার সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করা।

ঢাকার হেফাজতের প্রধান আরও বলেন, ইতোমধ্যে আমাদের আমীর আল্লামা আহমদ শফী ঘোষণা দিয়েছেন বৃহস্পতিবারের মধ্যে মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় না আনলে শুক্রবার বাদ জুমা সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হবে। এর অংশ হিসেবে শুক্রবার বায়তুল মোকাররমের উত্তরগেটে এবং ঢাকার বিভিন্ন জোনে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হবে।

দাবি না মানা হলে পরবর্তীতে আল্লামা শফী আলেম উলামাদের সঙ্গে পরামর্শ করে কঠোর কর্মসূচি দেবেন বলেও জানান মাওলানা কাসেমী।






মন্তব্য চালু নেই