মেইন ম্যেনু

লন্ডনের পথে প্রধানমন্ত্রী

বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়া নগরীতে অনুষ্ঠিতব্য গ্লোবাল উইমেন লিডারস ফোরামে অংশগ্রহণের জন্য ঢাকা ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি নিয়মিত ফ্লাইটে রওনা হন তিনি।শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, তিন বাহিনীর প্রধানগণ এবং উচ্চপদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তারা এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমানের ভিভিআইপি ফ্লাইটটি বিকেল ৪টা ১৫ মিনিটে (লন্ডন সময়) লন্ডনের হিথরো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। ওই দেশে বাংলাদেশের হাইকমিশনার আব্দুল হান্নান, বুলগেরিয়ার সংস্কৃতি বিষয়কমন্ত্রী ভেজদি রাশিদভ, বুলগেরিয়ান ওমেন কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক ভেনিয়া কানেভা এবং বুলগেরিয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আল্লামা সিদ্দিকি বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, লন্ডনে দুই দিন অবস্থানের পর সোফিয়ায় যাবেন শেখ হাসিনা। সেখানে বুধ থেকে শুক্রবার অনুষ্ঠেয় উইমেন লিডারস ফোরামে অংশ নেবেন তিনি।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার নারী নেতাদের উপস্থিতিতে ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী মূল বক্তা হিসেবে বক্তৃতা করবেন।

সফরসূচি অনুযায়ী, বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর সোয়া ১টায় সোফিয়ায় পৌঁছানোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। ওই দিন বিকেলে বুলগেরিয়ার প্রেসিডেন্ট রোসেন প্লেনেলিয়েভের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসবেন শেখ হাসিনা। এরপর রাতে ইউনেস্কো মহাসচিব ইরিনা বোকোভার দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেবেন তিনি।

শুক্রবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন বুলগেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী বয়কো বরিসভ। বৈঠকের পর দুই দেশের মধ্যে কয়েকটি চুক্তিও হতে পারে।

সফর শেষে ২০ মে রাতে সোফিয়া থেকে রওনা হয়ে ২১ মে (শনিবার) সকালে ঢাকা পৌঁছানোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।
সূত্র : বাসস






মন্তব্য চালু নেই