মেইন ম্যেনু

লন্ডনে বিচারপতি শামসুদ্দিনকে মারধর

সুপ্রিম কোর্টের সদ্য অবসরে যাওয়া বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে লন্ডনে ফের মারধর করেছে দুর্বৃত্তরা।এ নিয়ে দুবার তিনি হামলার শিকার হলেন।দুবারই লন্ডন শহরে তার ওপর হামলা করা হয়। এবার তিনি নিজের পরিচয় গোপন করার চেষ্টা করেও মারধরের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে ব্যর্থ হন।

স্থানীয় সময় বুধবার রাতে লন্ডনের বেথনাল গ্রিনের ইয়র্কে তিনি মারধরের শিকার হন।এর আগে ২০১২ সালের ২৭ জুন লন্ডনে অজ্ঞাতপরিচয় দুই বাঙ্গালি যুবক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরীকে মারধর করেছিল।

জানা গেছে, বুধবার রাতে লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে নেমে বাসায় যাওয়ার আগে বেথনাল গ্রিনের ইয়র্ক হলে হিন্দু সম্প্রদায়ের দুর্গাপূজার একটি মণ্ডপে যান বিচারপতি শামসুদ্দিন।

এরপর ইয়র্ক হল থেকে বেরিয়ে গাড়িতে ওঠার আগে হামলার শিকার হন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে তার মেয়েও ছিলেন। ফেইসবুকে ওই হামলার ঘটনার বিবরণ দিয়েছেন শামসুদ্দিন চৌধুরীর মেয়ে। ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেন, হঠাৎ একজন তার বাবার কাছে এসে জানতে চান তিনিই শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক কিনা। জবাব না দিলে সে মারধর শুরু করে।

এরপর আরও কয়েজন এসে হামলায় যোগ দেয় ও বিচারপতি শামসুদ্দিনের মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। হামলাকারীদের লাথি-ঘুষিতে এক পর্যায়ে শামসুদ্দিন চৌধুরী রাস্তায় পড়ে যান।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে বিচারপতি শামসুদ্দিনের মেয়ে লিখেছেন, হামলাকারীদের পরিচয় জানা না গেলেও তার ধারণা, তারা (হামলাকারীরা) ‘বিএনপির লোক’।

তিনি আরও জানান, এই গাট্টাগোট্টা বখাটেরা আমার বাবার চেহারাও চেনে না। কোনো সন্দেহ নেই, বিএনপির সন্ত্রাসী বাহিনীর নির্দেশনা পেয়েই তারা এসেছে।

স্ট্যাটাসের শুরুতে বিচারিপতি শামসুদ্দিন চৌধুরীর মেয়ে লিখেছেন, লন্ডনে নেমেই আমরা হামলার শিকার হলাম।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই