মেইন ম্যেনু

লন্ডন কাঁপানো সেই ৫ অগ্নিকন্যা এখন কে কোথায়?

১৯৯৬ সালের কথা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্টিক্স দল মাত করে দিয়েছিল সেবারের অলিম্পিক্সের আসর। সাত-সাতজন মহিলা জিমন্যাস্ট জিতে নিয়েছিলেন গোটা বিশ্ব। অচিরেই এঁদের নাম হয়ে যায় ‘ম্যাগনিফিসিয়েন্ট সেভেন’।

১৯৯৬-এর পরে কেটে গিয়েছে অনেকগুলো বছর। বিশ্বের দরবারে ‘ম্যাগনিফিসিয়েন্ট সেভেন’-এর মতো আর নজর কাড়তে পারেননি মার্কিন জিমন্যাস্টরা। ২০১২-র লন্ডন অলিম্পিক্স খুঁজে পায় এক ঝাঁক তরুণীকে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে তাঁরা
জিমন্যাস্টিক্সের ম্যাটে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিলেন। মার্কিন গণমাধ্যম আদর করে তাঁদের নাম দিয়েছিল ‘ফ্যাব ফাইভ’। পরবর্তীকালে এই ‘ফ্যাব ফাইভ’ই হয়ে গিয়েছিলেন ‘ফিয়ার্স ফাইভ’।

অ্যালি রেইসম্যান, ম্যাকাইলা ম্যারোনি, গ্যাবি ডগলাস, জর্ডিন ওয়েবার ও কাইলা রোজ—এঁরাই ‘ফিয়ার্স ফাইভ’। লন্ডনে দলগত ইভেন্টে রাশিয়াকে হারিয়ে সোনা জিতেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ‘ফিয়ার্স ফাইভ’-এর সদস্যরা ছিলেন এই জয়ের আসল কাণ্ডারী। গ্যাবি ডগলাস অল-রাউন্ডে সোনা জিতেছিলেন। ভল্ট ফাইনালে রুপো জিতে নেন ম্যারোনি। ফ্লোর এক্সারসাইজে সোনা তুলে নেন রেইসম্যান। ব্যালান্স বিমেও ব্রোঞ্জ জেতেন তিনি।

এ হেন পাঁচ জন জিমন্যাস্টের তো যথাযথ নামই দরকার। ম্যারোনিই ‘ফিয়ার্স ফাইভ’নামটা রেখেছিলেন। লন্ডন অলিম্পিক্সের বিখ্যাত এই ‘ফিয়ার্স ফাইভ’ এখন ভেঙে গিয়েছে। ‘ফিয়ার্স ফাইভ’-এর সবাই এবার নেই রিওতে। পাঁচ জনের মধ্যে অ্যালি রেইসম্যান ও গ্যাবি ডগলাস কেবল হাজির রিওতে। -এবেলা






মন্তব্য চালু নেই