মেইন ম্যেনু

লবণ ছাড়াই লবণাক্ততা- লো সোডিয়াম ডায়েট

এখন উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা প্রতি ঘরে ঘরে। লবণ রক্তচাপ আরও বাড়ায়। ডাক্তাররা তো কাঁচা লবণ খেতে নিষেধই করেন। খাবারেও পরিমাণে কম লবণ ব্যবহারের পরামর্শ দেন। কিন্তু যখন আপনি লো সোডিয়াম ডায়েট রান্না করা শিখছেন, শুধু খাবারের স্বাদ ঠিক রাখাই কিন্তু চিন্তার বিষয় না। আপনাকে শিখতে হবে লবণাক্ত ফ্লেভারটা যাতে ঠিক থাকে। নইলে যাদের জন্য করছেন এই আয়োজন, তারা কিন্তু খাবেই না দুইদিন পর। বৃথাই যাবে আপনার যত্নের রসনা।

কিন্তু লবণ না দিয়েও কীভাবে আনবেন লবণের স্বাদ? আসুন জেনে নিই ৪ টি কৌশল-

১। বিভিন্ন রকমের লবণ মুক্ত সিজনিংস ব্যবহার করুন
বাজারে এখন সহজেই রান্নায় ব্যবহারের জন্য বিভিন্ন রকম সিজনিংস পাওয়া যায়। ভাল মানের লবণ মুক্ত সিজনিংস ব্যবহার করুন। বিভিন্ন ফ্লেভারের সিজনিংস আনতে পারেন। কারণ একই ফ্লেভার আপনার রান্নাকে একঘেয়ে করে দিতে পারে। লবণ ছাড়া রান্নায় অভ্যস্ত হতে একটু সময় লাগবে। স্বাদের কিছু পার্থক্য তো থাকবেই। জীভে সয়ে আসবে সেটা ধীরে ধীরে। আজকে যে সিজনিংসটা আপনার ভাল লাগছে না, ২/৩ মাস পর সেটাই হয়ত ভাল লাগবে।

২। লেবুর রস
লবণ ছাড়াই লবণাক্ততা পেতে এর চেয়ে কার্যকরী কৌশল আর নেই। ফ্রেশ লেবু লবণের স্বাদের সবচেয়ে ঘণিষ্ট স্বাদ দেয়। লেবু চিপে রস করে ফেলুন। খাবারের সাথে যোগ করুন পরিমাণ মত। খুব বেশী ব্যবহার করবেন না, তাহলে লবণাক্ততার বদলে পেতে হবে টক স্বাদ। মাছ রান্না হোক বা মুরগী, এমনকি সব্জিতে। আজই ব্যবহার করে দেখুন। ভর্তা বা সালাদেও ব্যবহার করুন লবণের বদলে।

৩। ভিনেগার
চাল থেকে উৎপাদিত ভিনেগারে লবণ থাকে। তাই এটি এড়িয়ে চলুন। এছাড়া যেকোন প্রকারের ভিনেগারই লবণ ছাড়া লবণাক্ত স্বাদ যোগ করবে আপনার খাবারে। অ্যাপল সাইডার ভিনেগার এখন বেশ পাওয়া যাচ্ছে। সাধারণ সাদা ভিনেগারও দিতে পারেন। তবে অবশ্যই পরিমাণের ব্যাপারে সাবধান থাকবেন। বেশী ভিনেগার খাবারে ক্ষারীয় স্বাদ এনে দেবে। তাই অল্প দিন। আস্তে আস্তে যোগ করুন স্বাদ বুঝে। একটু খুঁজলে দেখবেন, বাজারে ভিনেগারের নানান ব্র্যান্ড আছে। একেক ব্রান্ডের ভিনেগার আলাদা স্বাদ এনে দেবে।

৪। মশলা ও ভেষজ উপাদান
বেশ কিছু মশলা ও হার্ব বা ভেষজ রয়েছে যেগুলো লবনের বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। ধনে পাতা, পুদিনা পাতা, বেসিল বা তুলসি পাতা বেশ নোনতা স্বাদ এনে দেবে আপনার খাবারে। এছাড়া অরিগ্যানো, পার্সলে, থাইম, রোজমেরির মতো বিদেশি হাবর্গুলোও আজকাল সহজেই পাওয়া যায় যা লবনের অভাব কিছুটা হলেও পূরণ করতে পারে। তেজপাতা, এলাচ, দারচিনি, জিরা, মরিচের গুড়ো, হলুদের গুঁড়ো তরকারিতে নোনা স্বাদ এনে দিতে পারে।

লো সোডিয়াম ডায়েট মেনে চলা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই জরুরী। এই সাধারণ টিপসগুলো মেনে চলুন। প্রথমে হয়ত দীর্ঘদিনের লবণ খাওয়া জিভে মোটেই ভাল লাগবে না খাবারগুলো। কিন্তু ধীরে ধীরে অভ্যাস হয়ে গেলে দেখবেন, লবণ দেওয়া খাবার খেতেই আর ভাল লাগছে না আপনার।






মন্তব্য চালু নেই