মেইন ম্যেনু

লাশ দেখে ফেরার পথে নৌকাডুবিতে ৩ জনের মৃত্যু

মেয়ের জামাতার লাশ দেখে বাড়ি ফেরার পথে নৌকা ডুবে মা-ছেলে ও পুত্রবধূসহ একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ঘটনাস্থলে গিয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরীরা নদীতে নিখোঁজ হওয়া তিনজনের লাশ উদ্ধার করেছে।

শুক্রবার রাত এগারোটার দিকে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়নের কোনাই নদীতে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন তরফপুর ইউনিয়নের টাকিয়া কদমা গ্রামের ছানোয়ার হোসেন ওরফে সনু মিয়ার স্ত্রী ফুলেছন বেগম (৬৫), তার ছেলে মো. আনোয়ার হোসেন (৪৫) ও পুত্রবধূ ফরিদা বেগম (৪০)।

ঘটনার পর এলাকায় শোকের মাতম বিরাজ করছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার রানাশাল গ্রামে পারিবারিক কলহের কারণে ফুলেছন বেগমের মেয়ের জামাই সমেজ উদ্দিন (৫৬) নিহত হন। তাকে শেষ দেখার জন্য বাড়ির লোকজন রানাশাল গ্রামে যান। সেখান থেকে রাতে বাড়ি ফেরার পথে কোনাই নদীতে একটি খেয়া নৌকায় পারাপার হওয়ার সময় নৌকাটি ডুবে যায়।

এসময় ফুলেছন বেগম, তার ছেলে আনোয়ার হোসেন ও পুত্রবধূ ফরিদা বেগম নিখোঁজ হন। বাকিরা সাঁতরে তীরে আসেন। এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে যাওয়ার পর গ্রামের শতশত লোক ঘটনা দেখার জন্য টাকিয়া কদমা গ্রামে ভিড় জমান।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের অফিসার ইনচার্জ মো. আতাউর রহমান বলেন, নিহতদের লাশ উদ্ধারের পর তাদের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই